Advertisements

করোনা ভাইরাস কি ?

প্রশ্নোত্তর বিভাগCategory: Questionsকরোনা ভাইরাস কি ?
Hasan mahmud Khan Staff asked 11 months ago
Advertisements

করোনা ভাইরাস কি? কিভাবে এই ভাইরাসটি সৃষ্ট? কিভাবে ছড়ায়? প্রতিকার কি?

পোষ্টটি লিখেছেন: Hasan mahmud Khan

এই ব্লগে এটাই এর প্রথম পোষ্ট.

Advertisements
1 Answers
Hasan mahmud Khan Staff answered 11 months ago
Advertisements

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে—-   ২০১৯-২০ সালে উহানে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব সম্পর্কিত নিবন্ধের জন্য, উহান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০) দেখুন।
 

করোনাভাইরাস

 

Advertisements

 

ভাইরাসের শ্রেণীবিন্যাস

গ্রুপ:
৪র্থ গ্রুপ ((+)ssRNA)

বর্গ:
নিদুভাইরাস

পরিবার:
করোনাভাইরদা

উপপরিবার:
করোনাভাইরিনা

গণ:

  • আলফাকরোনাভাইরাস
  • বেটাকরোনাভাইরাস
  • ডেল্টাকরোনাভাইরাস
  • গামাকরোনাভাইরাস

আদর্শ প্রজাতি

করোনাভাইরাস

করোনাভাইরাস হলো নিদুভাইরাস শ্রেণীর করোনাভাইরদা পরিবারভুক্ত করোনাভাইরিনা উপগোত্রের একটি সংক্রমণ ভাইরাস প্রজাতি।[১][২]
এ ভাইরাসের জিনোম নিজস্ব আরএনএ দিয়ে গঠিত। এর জিনোমের আকার সাধারণত ২৬ থেকে ৩২ কিলো বেস পেয়ার (kilo base-pair) এর মধ্যে হয়ে থাকে যা এ ধরনের আরএনএ ভাইরাসের মধ্যে সর্ববৃহৎ। করোনাভাইরাস শব্দটি ল্যাটিন করোনা থেকে নেওয়া হয়েছে যার অর্থ মুকুট। কারণ ইলেকট্রন অণুবীক্ষণ যন্ত্রে ভাইরাসটি দেখতে অনেকটা মুকুটের মত। ভাইরাসের উপরিভাগে প্রোটিন সমৃদ্ধ থাকে যা ভাইরাল স্পাইক পেপলোমার দ্বারা এর অঙ্গসংস্থান গঠন করে। এ প্রোটিন সংক্রামিত হওয়া টিস্যু বিনষ্ট করে।
সকল প্রজাতির করোনাভাইরাসে সাধারণত স্পাইক (এস), এনভেলপ (ই), মেমব্রেন (এম) এবং নিউক্লিওক্যাপসিড (এন) নামক চার ধরনের প্রেটিন দেখা যায়।[৩] এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে মানবদেহে যে রোগ হয় তার নাম হল কোভিড-১৯
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির প্রাথমিক লক্ষণ

  • জ্বর
  • অবসাদ
  • শুষ্ক কাশি
  • শ্বাস কষ্ট
  • গলা ব্যাথা
  • কিছু রোগীর ক্ষেত্রে উপরোক্ত সকল উপসর্গ দেখা গেলেও জ্বর থাকেনা।[৬]

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০)
মূল নিবন্ধসমূহ: উহান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০) এবং দেশ অনুযায়ী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০)
২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বরে চীনের১১ উহান শহরে করোনাভাইরাসের একটি প্রজাতির সংক্রামণ দেখা দেয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাইরাসটিকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ‘২০১৯-এনসিওভি’ নামকরণ করে। ২০২০ সালের ৩ মার্চ পর্যন্ত চীনের সাথে সাথে ৭০টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চলে সংক্রমণের খবর পাওয়া যায় যাতে ৩১০০ জনের বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে।[৭]
নিশ্চিতভাবে বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলে আরো ৯০,০০০ রোগী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।[৭] উহানে দেখা দেওয়া ভাইরাস প্রজাতিটি ‘এসএআরএস-সিওভি’ প্রজাতির সাথে ~৭০% জিনগত মিল পাওয়া যায়।[৮] অনেকেই অনুমান করছেন নতুন এ প্রজাতিটি সাপ থেকে এসেছে যদিও অনেক গবেষক এ মতের বিরোধীতা করেন।[৯]

পোষ্টটি লিখেছেন: Hasan mahmud Khan

এই ব্লগে এটাই এর প্রথম পোষ্ট.