২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজসমূহে এমবিবিএস কোর্সে প্রথম বর্ষে ভর্তির বিস্তারিত তথ্য

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে সকল সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি গত ২০ আগস্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর ওয়েবসাইটে প্রকাশ হয়েছে। প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে এবারও ভর্তির আবেদনের যোগ্যতা এসএসসি ও এইচএসসি মিলিয়ে মোট জিপিএ-৯ নির্ধারণ করা হয়েছে।

২৪ আগস্ট ২০১৭ তারিখ দুপুর ১২টা থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখ রাত ১১:৫৯ পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এবারও আবেদন ফি এক হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে যা শুধুমাত্র টেলিটক প্রিপেইড সিম এর মাধ্যমে জমা নেওয়া হয়েছে। এবার মেডিকেল কলেজসমূহের ভর্তি পরীক্ষা ০৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিচে তুলে দেওয়া হলোঃ

আমদের পেইজে লাইক দিন গ্রুপে যোগ দিন

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেলে আবেদনকারীর সংখ্যা: ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী আবেদনকারীর চূড়ান্ত সংখ্যা ৮২ হাজার ৮৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে। এ হিসেবে ৩১টি সরকারি মেডিকেল কলেজে নির্ধারিত ৩ হাজার ৩১৮ আসন সংখ্যার বিপরীতে প্রায় ২৫ গুণ বেশি আবেদন জমা পড়েছে।

২০টি পরীক্ষা কেন্দ্রের বিভিন্ন মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের মধ্যে ঢামেকে ৯ হাজার ৯৯৯, সলিমুল্লাহ মেডিকেলে ৭ হাজার, শহীদ সোহরাওয়ার্দীতে ৭ হাজার, ময়মনসিংহে ৭ হাজার, চট্টগ্রামে ৬ হাজার ৭৬, রাজশাহীতে ৬ হাজার ১৪৪, সিলেটে ২ হাজার ৮১৮, বরিশালে ১ হাজার ৭৬০, রংপুরে ৪ হাজার ৮১১, কুমিল্লায় ৪ হাজার ৬৫, খুলনায় ৩ হাজার ৫শ, বগুড়ায় ৩ হাজার ৬৩৩, ফরিদপুরে ১ হাজার ৫২৭, দিনাজপুরে ১ হাজার ৩৩৭, পাবনায় ১ হাজার ৪৯৯, কিশোরগঞ্জে ৮১৯, গোপালগঞ্জে ৮৬৮, গাজীপুরে ২ হাজার, মুগদায় ৫ হাজার ও ঢাকা ডেন্টাল কলেজে ৬ হাজার আবেদন জমা পড়ে।

বিগত শিক্ষাবর্ষে অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে সরকারি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য সর্বোচ্চ সংখ্যক ৯০ হাজারেরও বেশি ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর আবেদন জমা পড়ে।

নির্ধারিত সময়ে মেডিকেলে ভর্তিচ্ছু মোট পরীক্ষার্থী সংখ্যা ৯০ হাজার ৪২৬ জন শিক্ষার্থীর আবেদনপত্র জমা পড়ে। মোট আবেদনকারী হিসেবে সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য প্রতিটি আসনের বিপরীতে গতবছর ২৯ জন শিক্ষার্থীকে প্রতিদ্বন্দিতা করতে হয়েছিলো।

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের জন্য সতর্কবার্তা

আবেদনের যোগ্যতা:

  • ২০১৪ বা ২০১৫ সালের এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় ও ২০১৬ বা ২০১৭ সালের এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় পদার্থ, রসায়ন ও জীববিদ্যাসহ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে। ২০১৪ সালের পূর্বে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্র/ছাত্রীরা আবেদন করতে পারবেনা।
  • সকল দেশি ও বিদেশি শিক্ষা কার্যক্রমে এসএসসি / সমমান ও এইচএসসি / সমমান দুটো পরীক্ষা মিলিয়ে কমপক্ষে জিপিএ ৯ থাকলে তাঁরা পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের সুযোগ পাবে।
  • উপজাতি ও পার্বত্য জেলার অ-উপজাতি শিক্ষার্থী যাঁদের জিপিএ ৮ আছে তাঁরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। তবে কোনোটিতে জিপিএ-৩ দশমিক ৫০ এর নিচে থাকলে সেই শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে পারবেনা।
  • সকলের জন্য অবশ্যই এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় জীববিজ্ঞানে জিপিএ ন্যূনতম ৩ দশমিক ৫ থাকতে হবে।

মানবন্টন:

  • ১০০ (একশত) নম্বরের ১০০টি এমসিকিউ প্রশ্নের ১ (এক) ঘণ্টার লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষায় বিষয়ভিত্তিক নম্বরঃ- জীববিদ্যা-৩০; রসায়নবিদ্যা-২৫; পদার্থবিদ্যা-২০; ইংরেজি-১৫; সাধারণ জ্ঞানঃ বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি- ৬, আন্তর্জাতিক-৪।
  • ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস/বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় পূর্ববর্তী বছরের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের সর্বমোট (Aggregated) নম্বর (এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-এর ১৫ গুণ+এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-এর ২৫ গুণ+ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর) থেকে ০৫ নম্বর কেটে এবং পূর্ববর্তী বছরের সরকারী মেডিকেল বা ডেন্টাল কলেজ/ইউনিট-এ ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে মোট নম্বর থেকে ০৭.৫ (সাত দশমিক পাঁচ) নম্বর কেটে মেধা তালিকা তৈরি করা যাবে। লিখিত পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তর প্রদানের জন্য ০.২৫ নম্বর কেটে নেওয়া হবে।
  • লিখিত পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম ৪০ নম্বর পেতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের কম নম্বর প্রাপ্তরা অকৃতকার্য বলে গণ্য হবে। শুধুমাত্র কৃতকার্য পরীক্ষার্থীদের মেধা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে।
  • এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত ২০০ নম্বর হিসেবে নির্ধারণ করে নিম্নলিখিতভাবে মূল্যায়ন করা হবেঃ

            ক) এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-এর ১৫ গুণ= ৭৫ নম্বর (সর্বোচ্চ)

            খ) এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ-এর ২৫ গুণ= ১২৫ নম্বর (সর্বোচ্চ)

  • উল্লেখিত পদ্ধতিতে এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের যোগফলের ভিত্তিতে মেধা তালিকা প্রণয়ন করা হবে।

ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহঃ

  • অনলাইনে আবেদন শুরুর তারিখঃ ২৪ আগস্ট ২০১৭ (দুপুর ১২:০০ মিঃ)
  • অনলাইনে আবেদনের শেষ তারিখঃ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ (রাত ১১:৫৯ মিঃ)
  • প্রবেশপত্র ডাউনলোড প্রক্রিয়াঃ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ থেকে ০৪ অক্টোবর ২০১৭ পর্যন্ত চলবে।
  • ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ০৬ অক্টোবর ২০১৭ সকাল ১০ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত।
  • ক্লাশ শুরুর তারিখঃ এখনও ঘোষণা হয়নি।

পরীক্ষা ফিসঃ ১০০০/- (এক হাজার) টাকা

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজসমূহে ভর্তির আবেদন, প্রবেশ পত্র ডাউনলোড ও ফলাফল সংক্রান্ত ওয়েবসাইটের ঠিকানাঃ dghs.teletalk.com.bd

[এমবিবিএস ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ডাউনলোড করুন]

মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭-১৮ পাবেন এই লিঙ্কে।

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে প্রথম বর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি/নোটিশ

MBBS Admission Circular 2017-18

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে প্রথম বর্ষে ভর্তিচ্ছু ছাত্র ছাত্রীদের জন্য বিস্তারিত নির্দেশনা

Medical Admission Circular 2017-18

Medical Admission Circular 2017-18

Medical Admission Circular 2017-18

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজে আসন সংখ্যা:

Medical Admission Available Seat number 2017-18

Medical Admission Available Seat number 2017-18

 

উল্লেখ্য, গত বছর থেকে ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা পৃথকভাবে গ্রহণ করা হচ্ছে । ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পরবর্তীতে লেখাপড়া বিডিতে প্রকাশ করা হবে।

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল ও ডেন্টালসহ বাংলাদেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি তথ্য, প্রবেশপত্র ডাউনলোড এর তারিখ, ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ও অন্যান্য সর্বশেষ তথ্য জানতে নিয়মিত লেখাপড়া বিডি ডট কম এর ভর্তি তথ্য বিভাগ ভিজিট করুন।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 549 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট “লেখাপড়া বিডি”র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করছেন ।

Ads by Wizards

4 comments

  1. যারা রিচেক দিছে তাদর কি হব?????
    বলে রাখা ভাল আমার রসায়নে ফেইল অাসছে(কিন্তু ফেইল করার মত পরীক্ষা দিই নাই,,,,)
    আমাদের জন্য কি অন্য কোন ব্যবস্তা আছে????

  2. বিগত কয়েক বছরের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরিক্ষার প্রশ্নপত্রগুলো উত্তরপত্রসহ কোথায় পাওয়া যাবে ?

  3. nu te quota result dive kokhon??? plzzz ams it😭

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।