জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫ সালের অনার্স ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষার ফলাফল দেখুন এখান থেকে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যুক্ত সাতটি কলেজ বাদে) ২০১৫ সালের অনার্স ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষার ফলাফল ১৪/০৫/২০১৭ তারিখ দুপুরে প্রকাশ করা হয়েছে। বিকাল ৪ টা থেকে এসএমএস ও সন্ধ্যা ৬টা থেকে অনলাইনে উক্ত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের কিছু সময় আগেই উক্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

এক লাখ ১৯ হাজার ৩২৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ৯৮ হাজার ১২৪ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। পাসের হার ৮১ দশমিক ০৮ শতাংশ।

অনলাইনে অনার্স ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষার ফলাফল দেখুন এখান থেকেঃ

আমদের পেইজে লাইক দিন গ্রুপে যোগ দিন

মোবাইল ফোনের ব্রাউজার থেকে ফলাফল দেখতে সমস্যা হলে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

কলেজ ভিত্তিক ফলাফল জানতে এখানে ক্লিক করুন।

এস.এম.এস এর মাধ্যমে অনার্স ৪র্থ বর্ষের ফলাফল জানার নিয়মঃ

যে কোন  মোবাইল থেকে Message অপশনে গিয়ে nu<space>h4<space>Roll Number  লিখে 16222 নম্বরে পাঠাবে হবে।

ফিরতি SMS এ আপনার ফলাফল পেয়ে যাবেন।

প্রকাশিত ফলাফল সম্পর্কে পরীক্ষার্থী অথবা সংশ্লিষ্ট কলেজের কোন আপত্তি/অভিযোগ থাকলে তা ১৩/০৬/২০১৭ তারিখের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কলেজ/পরীক্ষার্থীকে প্রয়োজনীয় তথ্য সহ আবেদন করতে হবে। এরপর কোন আপত্তি/অভিযোগ কোন ভাবেই গ্রহণ করা হবে না। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫ সালের ৪র্থ বর্ষ অনার্স পরীক্ষার পুনঃনিরীক্ষণের বিস্তারিত তথ্য পাবেন এই লিঙ্কে

এবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের সিলেবাস অনুযায়ী ২০১৫ সালের অনার্স ৪র্থ বর্ষের তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা ৩রা জানুয়ারি ২০১৭ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ পর্যন্ত চলে।

এরপর ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা ২৫/০২/২০১৭ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ২৫/০৩/২০১৭ তারিখ পর্যন্ত চলে।  লিখিত পরীক্ষা চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি শেষ হওয়ার তিন মাস পর ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবার ৩য় বারের মত গ্রেডিং পদ্ধতিতে অনার্স চতুর্থ বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করা হলো।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 549 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট “লেখাপড়া বিডি”র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করছেন ।


Ads by Wizards

7 comments

  1. আপনাকে ও ধন্যবাধন্যবাদ

  2. সব ছাত্র ছাত্রী কে পাশ করে দেওয়া হোক ও তারা যেন ভাল নাম্বার পায় সেদিকে লক্ষ্য করা হোক।

  3. আচ্ছা কারও কি জানা আছে অনার্স ফাইনাল ইয়ারে যদি কোন বিষয়ে খারাপ করে সে কি মাস্টার্স এ ভর্তি হতে ?

  4. ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষা দেওয়ার পরেও যদি কোন বর্ষে ১টি বিষয় ফেল হয় তাহলে কি সার্টিফিকেট নিয়মিত না অনিয়মিত আসবে?

  5. আব্দুল্লাহ্

    স্যার এর দৃস্টি আকর্ষন করছি।।।

    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের, শিক্ষার্থীদের ১ বিষয়ে ফেইল করার জন্য। ১ সেমিস্টার লস্। এটা কোন মতেই গ্রহণ যোগ্য না। ১ বিষয়ের কারণে মাস্টার্স ভর্তি, চাকরির দরকাস্থ পুরন এমনকি কি অনার্স পর্যন্ত বাতিল হয়ে যায়। যেকোন কারণেই ফেইল হোক না কেন যাদের ১টি বাদে সব বিষয় পাশ আছে। তাদের কে বিষেশ বিবেচনায় F গ্রেড হতে D গ্রেড এ উন্নিত করা হোক,।এবং তাদের CGPA দেওয়া হোক।যাতে তার মাস্টার্স ভর্তি সহ, তার CGPA কাজে লাগাতে পারে।
    আর*।। বিষেশ বিবেচনায় পাশ কৃত শিক্ষার্থী ছারা, যারা শুধু চতুর্থ বর্ষে একাধিক বিষয়ে F গ্রেড পেয়েছেবা পাবে তাদের পরীক্ষা রেজাল্ট এর দুইমাসের মধ্যে একটা নিদ্দ্রিষ্ট ফি দিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হোক।
    এই পদ্ধতি শুধু চতৃর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য চালুকরা হোক।।

    সায়্যত্বশাষিত বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যেমন ৪র্থ বর্ষে ইয়ার লস হতে বেচে যায়, সেখানে আমার জাতীয় বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কি এটুকু সুযোগ পেতে পারি নাহ্??????আমরা ৩১ বিষয়ে পাশ করে ১ বিষয়ের জন্য এক বৎসর লস চাই নাহ্।।।।।।

    কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ
    রসায়ন বিভাগ
    প্রাক্তন ছাত্র
    2011-12
    ১৭/০৫/১৭
    বিদ্রঃ বানান ভুল মার্জনিয়।।জতীয় বিশ্ব বিদ্যালয়ের ওয়েব সাইডে মেইল ও সেয়ার করতে ভুলবেন না

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।