যশোরে “সিটি আইসিটি ফেয়ার – ২০১৫” উদ্বোধন

বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল জেলা যশোরে ““যশোর কম্পিউটার সিটি” এর আয়োজনে ও বিশ্বখ্যাত সব কোম্পানীর অংশগ্রহণে ২০১৫  “সিটি আইসিটি ফেয়ার – ২০১৫” শুরু হয়েছে। ১ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার এই মেলার উদ্বোধন করেন যশোর জেলার জেলা প্রশাসক জনাব ড. মোঃ হুমায়ুন কবির ও যশোর জেলার পুলিশ সুপার জনাব আনিসুর রহমান।

IMG_20150101_130511বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টায় কোরআন তেলাওয়াত এর মাধ্যমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়।

Tipu
ফারুক জাহাঙ্গীর টিপু

মেলার স্বাগত বক্তব্য দিতে গিয়ে যশোর কম্পিউটার সিটির আহ্বায়ক জনাব ফারুক জাহাঙ্গীর টিপু বলেন, “জাস কম্পিউটার এর মাধ্যমে মাত্র একটি দোকান দিয়ে যশোর কম্পিউটার সিটি যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে যশোর কম্পিঊটার সিটি দুইটা তলায় ব্যাপ্তি লাভ করেছে। যশোর কম্পিউটার সিটিতে যেন কোন ক্রেতা প্রতারিত না হয় সেজন্যে বর্তমানে যশোর কম্পিউটার সিটিতে করা হয়েছে যশোর কম্পিউটার সমিতি। কোন ক্রেতা যেন কোন আইটি পণ্য কিনে প্রতারিত না হয় সে জন্যে এই সমিতি কাজ করে যাচ্ছে”

তিনি এই সমিতির উন্নয়নে সবার মতামত আহ্বান করেন। তিনি আরো বলেন,”বর্তমানে যশোর কম্পিউটার সিটিতে সকল প্রযুক্তি পণ্য এতটায় সহজলভ্য যে এখানে যদি কোন প্রযুক্তি পণ্য না পাওয়া যায় তাহলে সেটা দেশের অন্য কোথাও ও পাওয়া যায় না।”

Maruf
যশোর পৌর মেয়র জনাব মারুফুল ইসলাম মারুফ

তিনি যশোর কম্পিউটার সিটি তৈরিতে যশোর জেলার পৌর মেয়র জনাব মারুফুল ইসলাম মারুফ এর অবদানের কথাও স্বীকার করেন।

স্বাগত বক্তব্যে পৌর মেয়র জনাব মারুফুল ইসলাম মারুফ বলেন,”আমি যশোর কম্পিউটার সমিতির সবার দাবী নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে যশোর কম্পিউটার সিটি বাস্তবায়ন করি। আমি যশোর কম্পিউটার সিটির কার্যক্রমে সন্তুষ্ট।

আমি যশোর এর সন্তান হিসেবে গর্বিত। যশোর বাংলাদেশের প্রথম পৌরসভা, প্রথম স্বাধীন জেলা। এমনকি দেশের প্রথম ডিজিটাল জেলাও যশোর।

যশোরে আইটি পার্ক তৈরী হচ্ছে যার ফলে যশোর এর তরুণেরা আইটি সম্পর্কিত নানান সুবিধা পাবে।”

SP
যশোর জেলা পুলিশ সুপার জনাব আনিসুর রহমান

আইটির সম্ভাবনার কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন,”আইটি সেক্টর থেকে যত সহজে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা যায় অন্য কোন সেক্টর থেকে তা এত সহজে সম্ভব না।”

DC
জেলা প্রশাসক জনাব ড. মোঃ হুমায়ুন কবির

যশোর জেলার পুলিশ সুপার জনাব আনিসুর রহমান বক্তব্যে বলেন,”আইটি বর্তমান বিশ্বের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আইটি ছাড়া চলা সম্ভব নয়।” তিনি এই মেলায় বিভিন্ন পণ্য ক্রেতারা ছাড়ে কিনতে পারবে সেই আশা ব্যক্ত করেন। এই মেলার যে কোন প্রয়োজনে যশোর জেলার পুলিশ বাহিনীর সার্বিক সহায়তা থাকবে বলে তিনি নিশ্চিত করেন।

প্রধান অথিতির বক্তব্য দিতে গিয়ে যশোর জেলার জেলা প্রশাসক জনাব ড. মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন,”যশোর জেলাকে বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল জেলা ঘোষণা করা হয়েছে। এই অবদান গোটা যশোরবাসীর।”

তিনি আরো বলেন,”এখানকার সাধারণ মানুষ কম্পিউটারের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সচেতন। ডিজিটাল বিষয় সম্পর্কে বোঝাতে এখানকার মানুসদেরকে বেশি কথা খরচ করতে হয়না।

যশোরে নির্মাণাধীন আইটি পার্কের সফলতায় যশোর কম্পিউটার সিটির গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।

একটি কথা প্রচলিত আছে Play with the computer. কম্পিউটার খেলতে খেলতে শিখতে হয়। অনেকে কম্পিটার নস্ট হয়ে যাবে ভেবে ব্যবহার থেকে বিরত থাকে। কিন্তু তাদের ধারণা ভুল। কম্পিটার যত ব্যবহার করা হবে ততই শেখা যাবে।”

Panna
রোকন উদ্দিন আহমেদ পান্না

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জেস টাওয়ার যশোর এর স্বত্বাধিকারী জনাব মতিউর রহমান বাবু ও ওয়েব ভ্যালী যশোর এর ব্যস্থাপনা পরিচালক রোকন উদ্দিন আহমেদ পান্না।

এরপর অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদেরকে যশোর কম্পিউটার সমতির পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। যশোর জেলার জেলা প্রশাসক জনাব ড. মোঃ হুমায়ুন কবির ও যশোর জেলার পুলিশ সুপার জনাব আনিসুর রহমান ফিতা কেটে মেলার উদ্বোধন করেন।City ICT Fair

উল্লেখ্য, যশোর শহরের জেস টাওয়ারে অবস্থিত যশোর কম্পিউটার সিটিতে ১ জানুয়ারী ২০১৫ থেকে ৭ জানুয়ারী ২০১৫ পর্যন্ত সপ্তাহব্যাপী চলবে এ মেলা ।

মেলায় বিশেষ ছাড়ে কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাবসহ বিভিন্ন আইটি পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রয় হবে। এছাড়া মেলায় শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হবে, থাকবে সফল ফ্রিল্যান্সারদের অংশগ্রহনে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার বিষয়ক কর্মশালা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ নানা আয়োজন।

“সিটি আইসিটি ফেয়ার – ২০১৫” এর মিডিয়া পার্টনার হিসেবে আছে বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট লেখাপড়া বিডি

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 616 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স ও আজম খান সরকারী কমার্স কলেজ থেকে এমবিএ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *