শিক্ষার্থীদের জন্য কোটি টাকার শিক্ষা প্রণোদনা দিচ্ছে নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ

করোনা পরিস্থিতিতে যাতে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ব্যাহত না হয় সে জন্য প্রায় ১৮ কোটি টাকার শিক্ষা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। সোমবার (০১ জুন ২০২০) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ।

করোনা ভাইরাসের কারণে সারা দেশে শিক্ষার্থীর স্বাভাবিক শিক্ষাজীবন নিয়ে তৈরি হয়েছে নানা সংশয়। এমন কঠিন পরিস্থিতেও যাতে শিক্ষা কার্যক্রমে ব্যাঘাত না ঘটে, তাই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। এই বিশেষ প্রণোদনার আওতায় এনইউবির শিক্ষার্থীরা শিক্ষা উপকরণ থেকে শুরু করে ইন্টারনেট ডেটাসহ শিক্ষাসংক্রান্ত প্রয়োজন মেটাতে পারবে।

যে কয়েকটি ধাপে এই শিক্ষা প্রণোদনা পাবে সেগুলো হলো- ইউনিভার্সিটির যেসব শিক্ষার্থী কভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে তাদের জন্য সামার ২০২০ সেমিস্টারের প্রায় ১০০ ভাগ টিউশন ফি ম্ওকুফের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এই সেমিস্টারে নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা সম্পূর্ণ টিউশন ফি এর উপর ২০ শতাংশ এবং অন্যান্য সব সুবিধার পরও ভর্তি ফি থেকে ৫০ শতাংশ ছাড় পাচ্ছে। বর্তমান অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা সামার ২০২০ সেমিস্টারের টিউশন ফির উপর ১৫ শতাংশ শিক্ষা প্রণোদনা পাবে। এছাড়া, নিয়মিত ও নতুন শিক্ষার্থীরা ৪ কিস্তিতে এই সেমিস্টারের ফি প্রদান করতে পারবে। যেসব শিক্ষার্থী বৈশ্বিক পরিস্থিতির কারণে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ও বিপর্যস্থ তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ১৫ শতাংশ বা তার বেশি টিউশন ফি মওকুফ করবে কর্তৃপক্ষ।

নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ট্রাস্ট এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ জানান, ‘‘নর্দান ইউনিভার্সিটি সব সময়ই মেধাবী, অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের বৃত্তি ও শিক্ষা প্রণোদনাসহ বিভিন্নভাবে সহায়তা করে আসছে। করোনা বিপর্যয়ে আর্থিক সমস্যায় থাকা শিক্ষার্থীরা যাতে পড়াশোনা অব্যাহত রাখতে পারে সে বিষয়টি মাথায় রেখে বিশেষ এই প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে।”

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, শিক্ষার্থীদের কারিগরি সহায়তা বৃদ্ধি ও অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ শতভাগ নিশ্চিতের লক্ষ্যে সর্বাত্মক পরিশ্রম দিন-রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এই ইউনিভার্সিটির শিক্ষকগন। যাবতীয় সুবিধাদির যথাযথ ব্যবহার ও উপভোগের মাধ্যমে এই বৈশ্বিক সঙ্কট কালেও নর্দান ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দৃঢ়তার সঙ্গে অগ্রসর হতে পারবে বলে কর্তৃপক্ষ আশা করছে। উল্লেখ্য, আগামী ১লা জুলাই থেকে সামার ২০২০ সেমিস্টার শুরু হবে।

পোষ্টটি লিখেছেন: লেখাপড়া বিডি ডেস্ক

লেখাপড়া বিডি ডেস্ক এই ব্লগে 1066 টি পোষ্ট লিখেছেন .

লেখাপড়া বিডি বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ।

আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন পেইজে লাইক দিন গ্রুপে যোগ দিন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *