মাত্র ৪ দিনেই না দেখে বিজয় বাংলা টাইপ শিখে ফেলুন ১০০% গ্যারন্টি

ভূমিকা শুরু করার আগে নিজের ঢোলটা একটু পিটিয়ে নেই। কেউ যদি আমাকে বলে, কি বোর্ডের দিকে তাকিয়ে, অক্ষর গুলো দেখে আমাকে কিছু টাইপ করে দেও। তখন আমি বলবো, আমি দেখে টাইপ করতে পারি না। অনেকেই হয়তো বলতে হয়তো কোন ভেষজ খেয়েছি তাই উল্টাপাল্টা কথা বলছে। বিশ্বাস করেন, আমি কিছুই খাইনি। কি বোর্ডের দিকে তাকিয়ে আমার এক লাইন লিখতে ১০ মিনিটেরও বেশি সময় লাগতে পারে। অথচ কেউ যদি আমার চোখ কালো কাপড়ে বেধে দেয়ে তাহলে আমি প্রতি মিনিটে বাংলা বা ইংরেজী কম হলেও ৬০ টা শব্দ লিখে দেখাবো। শব্দ মানে অক্ষর নয় এটা শব্দ। হয়তো অনেকেই ধারনা করতে পারছেন আমার টাইপিং স্পিড কেমন।

এবার অনেকেই হয়তো নিশ্চিত হয়ে গেছেন আমি ভেষজ খেয়েছি মাস্ট। আমি বলবো, কিছুই খাইনি। আমি যখন কিবোর্ড টাইপিং শিখেছি তখন এভাবেই শিখেছি। না দেখে কিভাবে টাইপ করতে হয় সে বিদ্যাটা আমি ভালোভাবেই শিখে ফেলেছি। এটাকে বলে টাচ টাইপিং। মানে কিবোর্ডে আঙ্গুল দিলেই আপনি বুঝে যাবেন কোথায় কোন অক্ষর আছে। মনে হচ্ছে খুব কঠিন বেপার? আরে না, নিয়ম গুলো জানলে আপনি হেসেই ফেলবেন।

যাইহোক, প্রথমেই বলে নিচ্ছি বাংলা টাইপের জন্য বিজয় কিবোর্ড শিখে ফেলুন। সেটা মোবাইল বা কম্পিউটারই হোক। কারন বিজয় টাইপিংই খুব পপুলার। এখন বলতে পারেন, ওরে বাবা বিজয়তো খুবই ভয়ংকর বেপার। কি সব উল্টাপাল্টা লেখা। যুক্ত অক্ষর, আরো কতো কি?
আজ আপনাদের সকল ভয়ের সমাধান দেবো। বিজয় টাইপিংকে এমন ভাবে দেখাবো যাতে আপনারা মাত্র ৪ দিনেই না দেখে টাইপ করা শিখে যেতে পারেন।

যা যা লাগবে

১/ একটা ডেক্সটপ বা ল্যাপটপ।
২/ বিজয় সফটওয়্যার ইন্সটল থাকতে হবে।
৩/ হাতে ৫+৫ মোট ১০টা আঙ্গুল থাকতে হবে।

আসেন দাদা দাত ফালাই

টাইপ শুরু করার আগে একটা বিজয় ফন্ট সিলেক্ট করেন আর কি বোর্ড থেকে Ctrl+Alt+B চাপ দেন তাহলে বিজয় এক্টিভ হয়ে যাবে।

১। প্রথকে কি বোর্ডের দিকে তাকান। F এবং J দুটি বাটনের দিকে ভালো ভাবে খেয়াল করেন। কিছু বুঝলেন? বাটন দুটি কিন্তু সবার থেকে আলাদা। বাটনের উপর দুটি দাগ আছে যা হাত দিলে বোঝা যায়। দাদা বা দাদীরা, খেলা এখানেই।
২। দুই হাতের দুটি ইন্ডেক্স ফিংগার দুটি বাটনের উপর রাখেন। অর্থাৎ বৃদ্ধাঙ্গুলির পাশে,, যেটা দিয়ে সবাইকে চুপ থাকতে বলি। F এর উপর বাম হাতের আঙ্গুল আর J এর উপর ডান হাতের আঙ্গুল রাখুন। এরপর পর্যায়ক্রমে বাম হাতের আঙ্গুল গুলো D, S, A এর উপর এবাং ডান হাতের আঙ্গুল গুলো K, L, ; এর উপর বসিয়ে দিন। কেল্লা ফতে।
৩। মনে রাখবেন, দেশে যদি ভুমিকম্পও হয় তাহলে টাইপিং এর সময় ইন্ডেক্স ফিংগার দুটি এফ ও জে এর উপর থেকে উঠাবেন না। তার মানে চেপে ধরে রাখবেন এমন না। খেয়াল রাখবেন যেন, না দেখে হলেও এই দুইটা বাটন খুজে পান। বাকিগুলোর উপর না থাকতেও চলবে। এই দুইটা বাটনকে খুজে পেলে আপনি বাকিগুলো এমনিতেই খুজে পাবেন। তাই আগে এই দুটি বাটন নজর রাখার চেষ্টা করুন।

এবার কিভাবে প্রাকটিস করবেন তার একটা ভিডিও শেয়ার করছি। কারন বিষয়গুলো লিখে বা বলে বোঝানো খুবই কঠিন কাজ। ভিডিও দেখতে নিচের লিংকগুলোতে ক্লিক করুন।

>> ১ম দিন ক্লিক করুন
>> ২য় দিন ক্লিক করুন
>> ৩য় দিন ক্লিক করুন
>> ৪র্থ দিন ক্লিক করুন

কি বন্ধুরা, খুব সহজ তাই না। এবার যার যা পকেটে আছে দিয়ে দিন। আমি কিন্তু ছিনতাই করছি না। এমন একটা বিষয় শেখালাম বিনিময়ে কিছুই নেবো না তা তো হয় না। হা হা। মেয়েদের দিতে হবে না, কারন ওরা দেবে না এটা নিশ্চিত। মজা করলাম।
আজকের মতে এই পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

পোষ্টটি লিখেছেন: jobayer09

Jobayer Rahman এই ব্লগে 6 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *