টেলিটক আগামী সিম এর বিতরণ শুরু হচ্ছে আজ থেকে। আপনার সিম গ্রহনের তারিখসহ বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন এখান থেকে

২০১০, ২০১১, ২০১২ সালে এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত সকল ছাত্র-ছাত্রী এবং ২০১৩ ও ২০১৪ সালে এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রী যারা টেলিটকের আগামী সিম গ্রহণ করে নাই সেইসব ছাত্র-ছাত্রীগণকে টেলিটক দিচ্ছে বিশেষ সুবিধা সম্বলিত সিম “টেলিটক আগামী” একদম ফ্রিতে! এই সিম এর সুবিধাসমূহ জানতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন। যারা এখনো আবেদন করেননি তারা ১৫/১১/২০১৪ তারিখ পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। আজ ১০ই নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে এই সিম এর বিতরণ প্রক্রিয়া। যারা এই সিম এর জন্যে আবেদন করেছিলেন কিন্তু এখনো জানেন না যে কবে কোথায় কখন এই সিম সংগ্রহ করা যাবে তারা নিচের লিঙ্কে দেওয়া পিডিএফ ফাইলটি ডাউনলোড করে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন।Teletalk Agami

Pointing-finger-hand-moving-rightআপনার সিম সংগ্রহের তারিখ ও সময় জানতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

Pointing-finger-hand-moving-rightযারা যাত্রাবাড়ী সিটি কর্পোরেশন এর অধিনে আবেদন করেছিলেন তাদের সংগ্রহের তারিখ ও সময় জানতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

সিম নেওয়ার সময় যেসব ডকুমেন্ট সাথে নেওয়া লাগবেঃ

►যে কাস্টমার কেয়ারের নাম দেয়া হয়েছে শুধুমাত্র সেখান থেকেই সিম উত্তোলন করতে হবে।

►যার নামে রেজিস্ট্রেশন করেছো তার দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি জমা দিতে হবে।

►পাসপোর্ট দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করলে পাসপোর্টের ফটোকপি জমা দিতে হবে।

►তোমার এস.এস.সির অ্যাডমিট কার্ডের মূলকপি দেখাতে হবে এবং ফটোকপি জমা দিতে হবে । মূলকপি দেখাতে না পারলে সিম দিবে না।

►অনলাইন রেজিস্ট্রেশন ফর্মের কালার প্রিন্ট জমা দিতে হবে।

►গ্রাহক নিবন্ধন ফর্ম পুরন করে জমা দিতে হবে । ফর্মটি টেলিটক কাস্টমার কেয়ার থেকে নিয়ে অথবা ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

►অভিভাবকের নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করা হলে সিম উত্তোলনের দিন তার যাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। শুধু তুমি উপস্থিত থাকলেই হবে।

কিছু সাধারন প্রশ্নের উত্তরঃ

  1. অনলাইন রেজিস্ট্রেশন ফর্ম এবং গ্রাহক নিবন্ধন ফর্ম নিয়ে অনেকেরই কনফিউশন আছে।

কেননা দুইটা ফর্মের সাথেই user registration form লেখা আছে।লেখা দেখে আপাত দৃষ্টিতে এক মনে হলেও আসলে ফর্ম দুইটা আলাদা এবং সেই সাথে ফর্ম দুইটার কাজটাও ভিন্য।

►প্রথমত তুমি অনলাইনে ফর্ম পুরন করার পর যে user registration form ডাউনলোড দিছ,এটা মেইনলি তুমি যে সিম রেজিস্ট্রেশন করছো তার প্রমান হিসেবে কাজ করবে।

►দ্বিতীয়ত গ্রাহক নিবন্ধন ফর্ম/ user registration form এই ফর্মটা যে কোন সিম কেনার সময় পুরন করতে হয় যার এক কপি গ্রাহককে দেয়া হয়।এই ফর্মটি মুলত সিমের দলিল হিসেবে কাজ করে।
যদি কখনো সিম হারায়া যায় তাহলে এই ফর্মটা দিয়ে সিম রিপ্লেসমেন্ট করা যাবে।২

2.সিম উত্তোলনের জন্য যে তারিখ দেয়া হয়েছে,কোন কারনে যদি ঐ তারিখে যেতে না পারি তাহলে কি পরে সিম নিতে পারব??

উত্তরঃ হ্যা । উক্ত দিনে যেতে না পারলে দুই/তিন দিন পরে যেয়েও সিম নেয়া যাবে ।
তবে বেশি দেরী করা যাবে না । সবচেয়ে ভালো হয় তুমি কয়দিন পরে যেতে চাচ্ছ সেটা কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে জানিয়ে রাখলে!!

3.আমি যদি যেতে না পারি তবে কোন অভিভাবক কিংবা যার নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে,তিনি গেলে তাকে সিম দিবে কিনা??

উত্তরঃ হ্যা । সিম দিবে ।
সেক্ষেত্রে তোমার SSC এর মূল কাগজপত্র যেমন অ্যাডমিট কার্ড,রেজিস্ট্রেশন কার্ড দেখাতে পারলেই সিম দিয়ে দিবে

4.সিমের রেজিস্ট্রেশন অভিভাবকের নামে করা হয়েছে কিন্তু সিম নিতে স্টুডেন্টকে যেতে বলা হয়েছে..তাহলে Thumb print টা কে দিবে??
নাকি বাসা থেকে Thumb print দিয়ে নিয়ে যেতে হবে??

উত্তরঃ সিম উত্তোলন করতে যে যাবে Thumb print টা তাকেই দিতে হবে..যদি স্টুডেন্ট যায় তাহলে স্টুডেন্টকে আর অভিভাবক গেলে অভিভাবককে ।

কৃতজ্ঞতাঃ ইমতিয়াজ শুভ

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 615 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করে আজম খান সরকারী কমার্স কলেজে এমবিএ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *