বশেমুরবিপ্রবিতে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত তথ্য

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি)-তে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে। প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে উক্ত ভর্তি পরীক্ষা ০২, ০৩, ০৯ ও ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

শিক্ষার্থীরা ১৬ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ০১মিনিট থেকে ২৫ অক্টোবর রাত ১২টা পর্যন্ত ভর্তির আবেদন করতে পারবে। ভর্তি পরীক্ষার তারিখ, আবেদন প্রক্রিয়া, প্রবেশপত্র সংগ্রহ, ফলাফল প্রকাশ সহ ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট এর পাশাপাশি লেখাপড়া বিডির এই পোস্টে পাওয়া যাবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

[বশেমুরবিপ্রবি সার্কুলার ডাউনলোড]

অনলাইনে আবেদন করতে ভিজিট করুনঃ admission.bsmrstu.edu.bd/b/admission/

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল

প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

আসন বিন্যাস সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

বশেমুরবিপ্রবি’র ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনে লড়বে ৩৩ জন

গুরুত্ত্ব পূর্ন সময় ও তারিখঃ

আবেদন শুরু : ১৬/০৯/২০১৮ তারিখ রাত ১২:০১ মিনিট

আবেদন শেষ : ২৫/১০/২০১৮ তারিখ রাত ১২:০০ টা পর্যন্ত

প্রবেশপত্র ডাউনলোড এর শেষ তারিখঃ ২৭ অক্টোবর ২০১৮

ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচীঃ

তারিখইউনিটসময়
২ নভেম্বর (শুক্রবার) ২০১৮Unit “D”সকাল ১০:০০ টা
Unit “E”বিকাল  ০৩:০০ টা
৩ নভেম্বর (শনিবার) ২০১৮Unit “F”সকাল ১০:০০ টা
Unit “G”বিকাল  ০৩:০০ টা
৯ নভেম্বর (শুক্রবার) ২০১৮Unit “C”সকাল ১০:০০ টা
Unit “H”বিকাল  ০৩:০০ টা
১০ নভেম্বর (শনিবার) ২০১৮Unit “A”বিকাল  ০৩:৩০ টা
Unit “B”দুপুর ০১:০০ টা
Unit “I”সকাল ১০:০০ টা

আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা

SSC/সমমানঃ ২০১৪ , ২০১৫ ও ২০১৬ সালে পাশ
HSC/সমমানঃ ২০১৭ বা ২০১৮ সালে

বিজ্ঞান বিভাগের জন্যঃ
SSC/সমমান ও HSC/সমমান মিলিয়ে চতুর্থ বিষয় সহ মোট জিপিএ ৬.৫০ থাকতে হবে । তবে A Unit এর জন্য আলাদা ভাবে ৩ সহ মোট ৭.০০ থাকতে হবে ।

মানবিক ও বানিজ্য বিভাগের জন্যঃ
SSC/সমমান ও HSC/সমমান মিলিয়ে চতুর্থ বিষয় সহ মোট জিপিএ ৬.০০ থাকতে হবে ।

ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন

মোট নম্বর-৮০

A Unit(শুধু মাত্র বিজ্ঞান বিভাগের জন্য):
পদার্থ-২৫ , গণিত-২৫ , রসায়ন-২০,ইংরেজী-১০

B Unit(শুধু মাত্র বিজ্ঞান বিভাগের জন্য):
পদার্থ-২৫ , গণিত-২৫ , রসায়ন-২০,ইংরেজী-১০

C Unit(সকল বিভাগ):
বিজ্ঞানঃ পদার্থ-১৫ ,জীববিজ্ঞান-৩৫ , রসায়ন-৩০
বানিজ্য ও মানবিকঃ বাংলা-৩৫, ইংরেজী-৩৫,সাধারন জ্ঞান-১০

D Unit(সকল বিভাগ):
বাংলা-৩৫, ইংরেজী-৩৫,সাধারন জ্ঞান-১০

E Unit(সকল বিভাগ):
বাংলা-৩০, ইংরেজী-৪০,সাধারন জ্ঞান-১০

F Unit(সকল বিভাগ):
বানিজ্য শাখার জন্যঃ ইংরেজী-২০,বাংলা-১০,হিসাববিজ্ঞান-২৫,ব্যবসায় নীতি-২৫
অন্যান্য শাখার জন্যঃ
বাংলা-২৫, ইংরেজী-৩৫,সাধারন জ্ঞান ও গাণিতিক যুক্তি-২০

G Unit(সকল বিভাগের জন্য):
বাংলা-৩০, ইংরেজী-৪০,সাধারন জ্ঞান-১০

H Unit(বিজ্ঞান বিভাগের জন্য):
পদার্থ-১৫ ,জীববিজ্ঞান-৩৫ , রসায়ন-৩০

I Unit( আর্কিটেকচার (বিজ্ঞান বিভাগের জন্য):
পদার্থ-২০, গনিত-২০, রসায়ন-১০, ড্রয়িং-৩০

এবারে নয়টি ইউনিটের অধীনে ৩৪ বিভাগে সর্বমোট ৩২৪৫ জন (বিদেশি শিক্ষার্থী ও কোটাসহ) শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ইউনিটসমূহ হলো এ, বি, সি, ডি, ই, এফ, জি, এইচ এবং আই।

‘ডি’ এবং ‘ই’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২ নভেম্বর; ‘এফ’ এবং ‘জি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩ নভেম্বর; ‘সি’ এবং ‘এইচ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৯ নভেম্বর; ‘এ’, ‘বি এবং ‘আই’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

‘এ’ ইউনিটের অধীনে বিভাগসমূহ হলো কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, এ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াকরণ ইঞ্জিনিয়ারিং।

‘বি’ ইউনিটের অধীনে বিভাগসমূহ হলো গণিত, পরিসংখ্যান, রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান এবং পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা।

‘সি’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ফার্মেসি, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং, বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি, মনোবিজ্ঞান, উদ্ভিদ বিজ্ঞান।

‘ডি’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ইংরেজি, বাংলা, ইতিহাস। ‘ই’ ইউনিটের অধীনে বিভাগসমূহ হলো সমাজবিজ্ঞান, লোকপ্রশাসন, অর্থনীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, রাষ্ট্রবিজ্ঞান। ‘এফ’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ, একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস, মার্কেটিং, ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং এবং ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট। ‘জি’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো আইন। ‘এইচ’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো কৃষি, ফিসারিজ অ্যান্ড মেরিন বায়োসাইন্স এবং প্রাণীসম্পদ বিজ্ঞান ও ভেটেরিনারি মেডিসিন। ‘আই’ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো আর্কিটেকচার।

এবারে মূল আসনের অতিরিক্ত হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৫ শতাংশ, প্রতিবন্ধী কোটায় ১ শতাংশ, খেলাধুলা/সাংস্কৃতিক কোটায় ১ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী কোটায় ১ শতাংশ এবং পোষ্য কোটায় ১ শতাংশ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এছাড়া ১০০টি আসন বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য সংরক্ষিত রয়েছে।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 580 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করে আজম খান সরকারী কমার্স কলেজে এমবিএ করছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 + 4 =