পিকেএসএফ-এর উদ্যোগে ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্স- এর ভিক্ষুক পুনর্বাসনের নিয়ে গবেষণা

পিকেএসএফ-এর উদ্যোগে ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্স-এর পোস্ট গ্রাজুয়েট, এন্টারপ্রাইজ ডেভেলপমেন্টের ছাত্র মো: নাজিম উদ দৌলা কর্তৃক ভিক্ষুক পুনর্বাসনের নিয়ে গবেষণার ওপর ২৭.১২.১৮ তারিখ সকালে একটি মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। মতবিনিময় সভায় পিকেএসএফ-এর সম্মানিত উপ- ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ড. মোঃ জসীম উদ্দিন সভাপতিত্ব করেন।

এ সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্সের উদ্যোক্তা বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহাবুব আলী উপস্থিত ছিলেন। গবেষণায় মো: নাজিম উদ দৌলা উল্লেখ করেন যে, ভিক্ষুক পুনর্বাসনের মাধ্যমে পিকেএসএফ সামাজিক দায়িত্ব পালন করছে। তাঁর মতে উদ্যোক্তা তৈরির জন্য ও স্বাবলম্বী করার জন্য পিকেএসএফ সমৃদ্ধি কর্মসূচি গ্রহন করেছে। উক্ত মতবিনিময় সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ-এর সিনিয়র মহাব্যবস্থাপক, জনাব মো: মশিয়ার রহমান এবং অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্সের প্রভাষক, জনাব সাদিয়া ইসলাম ও পিকেএসএফ-এর সহকারী মহাব্যবস্থাপক জনাব দীপেন কুমার সাহা।

উক্ত মতবিনিময় সভায় প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহাবুব আলী ভিক্ষুক পুনর্বাসনের মাধ্যমে মানব মর্যাদা সুসংহত করার জন্য প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ও পিকেএসএফ-এর সম্মানিত চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদকে ধন্যবাদ জানান এবং পিকেএসএফ সামাজিক দায়িত্ব পালন করছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। প্রফেসর আলী বর্তমান সরকারকে ও ধন্যবাদ জানান।

পিকেএসএফ-এর উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ড. মোঃ জসীম উদ্দিন সভাপতির বক্তব্যে মন্তব্য করেন যে, সামাজিক দায়িত্ব পালনসহ বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পিকেএসএফ অনন্য ভূমিকা পালন করছে।

ভিক্ষুক পুনর্বাসনসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিকে মানবমর্যাদায় প্রতিষ্ঠা করার জন্য পিকেএসএফ ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাবে- মন্তব্য করেন ।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 615 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করে আজম খান সরকারী কমার্স কলেজে এমবিএ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *