একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপে আবেদন করেছে ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৭৫ শিক্ষার্থী

২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথম ধাপে দেশের আটটি সাধারণ বোর্ড ও মাদরাসা বোর্ডের বিভিন্ন কলেজে আবেদন করেছে ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৭৫ জন শিক্ষার্থী।

এর মধ্যে ৯ লাখ ৬৫ হাজার ৫৫১ জন আবেদন করেছেন অনলাইনে এবং ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৯৮১ জন আবেদন করেছেন এসএমএসের মাধ্যমে।

বৃহস্পতিবার ২৪ মে দিনগত রাত ১২টা পর্যন্ত প্রথম ধাপের এ পরিমান আবেদন পড়ে। নীতিমালা অনুযায়ী প্রথম ধাপে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ভর্তি তালিকা আগামী ১০ জুন প্রকাশ করা হবে।

সারাদেশে এবার ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৮৯ জন পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ শিক্ষার্থী পাস করেছে। ওই হিসেবে ২ লাখ ৬ হাজার ৬২৯ জন শিক্ষার্থী এখনও ভর্তির জন্য আবেদন করেনি। যারা আবেদন করেনি, তাদের অনেকে ঝরে পড়বে। কেউ কেউ দেশের বাইরে পড়তে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরির্দশক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, সারাদেশে আটটি সাধারণ ও মাদরাসা বোর্ডের অধিনে ৭ হাজার ৩১৯টি কলেজে ২৮ লাখ ৭৬ হাজার ২৯৯টি আসন রয়েছে। তার মধ্যে ঢাকা বোর্ডের অধিনে ৯৮৭টি কলেজ রয়েছে। সেখানে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৮৮৭টি আসন রয়েছে। মাদরাসা বোর্ডের অধিনে ৩২ হাজার ৩৬৪টি কলেজে ৪২ হাজার ৭৪৪টি আসন রয়েছে। তাই ভর্তি আসন সঙ্কট হবে না।

জানা গেছে, ঢাকা বোর্ডে মোট ৪ লাখ ৩২ হাজার ২০১ জন পাস করেছে। পাস করা শিক্ষার্থীর চাইতে আসন সংখ্যা বেশি রয়েছে। এছাড়াও আটটি বোর্ডের অধিনে ২১ লাখ ৩৩ হাজার ৫৫৯টি আসন রয়েছে। সেখানে এবার ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পাস করেছেন। সাধারণ বোর্ডেও পাসের চাইতে আসন সংখ্যা বেশি রয়েছে।

হারুন অর রশিদ আরও বলেন, যে সকল কলেজে আসন সংখ্যার চাইতে বরাবর শিক্ষার্থী ভর্তি কম রয়েছে এমন প্রায় ২০০ প্রতিষ্ঠানে আসন সংখ্যা কমানে হয়েছে। অন্যদিকে শিক্ষার্থীর ভর্তি চাহিদা রয়েছে অথচ আসন সংখ্যা কম এমন ১৫০টির মতো কলেজে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এবার কারিগরি বোর্ডের ভর্তি কার্যক্রম আলাদা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে একদশ শ্রেণিতে অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে প্রথম পর্যায়ে আবেদনকারীদের ফল প্রকাশ করা হবে আগামী ১০ জুন। এছাড়া ফল পুনর্নিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে, তাদের আবেদন আগামী ৫ ও ৬ জুন পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে। এবার শিক্ষার্থী ভর্তির নিশ্চয়ন না করলে নির্বাচন ও আবেদন বাতিল হবে।

কলেজে ভর্তির জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ শুরু হবে আগামী ১৯ ও ২০ জুন। দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের তালিকা প্রকাশ করা হবে ২১ জুন।

এছাড়া তৃতীয় পর্যায়ে আবেদন গ্রহণ করা হবে ২৪ জুন এবং তালিকা প্রকাশ হবে ২৫ জুন। আনুষঙ্গিক কাজ শেষ করে ২৭ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ভর্তি চলবে এবং ১ জুলাই থেকে একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হবে।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 566 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করে আজম খান সরকারী কমার্স কলেজে এমবিএ করছেন।

One comment

  1. ১টি তথ্য জানতে চাইছি প্রথম বার সিলেক্ট হয়ে গেলে পছন্দ না হলে ২য় বার আবেদন করে মন মত না হলে তিতীয় বার ১ম কলেজে আসতে চাইলে কি করতে হবে একটু সহোযোগিতা করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।