বার্ট্র্যান্ড রাসেলের নীতি দর্শন নিয়ে রাশিদা আখতার খানমের নতুন বই

নোবেল পুরষ্কার প্রাপ্ত বিশ্বখ্যাত দার্শনিক বার্ট্র্যান্ড রাসেলের নীতি দর্শন নিয়ে লেখা রাশিদা আখতার খানমের নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে অমর একুশে বইমেলায়। ইংরেজিতে লেখা এ বইয়ের নাম দেয়া হয়েছে “রাসেল’স আর্লি এথিকস উইথ এ স্পেশাল রেফারেন্স টু জি.ই. ম্যূর”। ড. গালিব আহসান খান’র তৈরি করা প্রচ্ছদে বইটি প্রকাশ করেছে জাতীয় সাহিত্য প্রকাশ। ১৮০ টাকার মূল্যের বইটি পাওয়া যাচ্ছে এবারের মেলার ৫০৫ নম্বর স্টলে।

বিশ্বখ্যাত দার্শনিক বার্ট্র্যান্ড রাসেল ছাত্রজীবন থেকেই দর্শন বিষয়ে সৃজনশীল মৌলিক চিন্তার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ে ছাত্র থাকাকালে তিনি নৈতিকতা বিষয়ে কিছু প্রবন্ধ রচনা করেছিলেন সে সময়ের প্রচলিত নৈতিক মতাদর্শের সমালোচনা করে এবং বিকল্প মতাদর্শ উপস্থাপন করে। এগুলো রচিত হয়েছিল ১৮৯৩ থেকে ১৮৯৫ সনের মধ্যে।

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে রাসেল যে সময়ে ছাত্র ছিলেন, সে সময়ে বিংশ শতাব্দীর অন্যতম খ্যাতিমান দার্শনিক জি. ই. ম্যূর ছিলেন ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়েরই স্নাতক পর্যায়ের ছাত্র, রাসেলের জুনিয়র। ছাত্রাবস্থায় ম্যূরের মধ্যেও ছিল দর্শন বিষয়ে মৌলিক চিন্তার ও সৃজনশীল রচনাশৈলীর প্রতিভা।

এই বাস্তবতায় ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র থাকাকালে রাসেল এবং ম্যূরের, অর্থাৎ উভয়ের মধ্যে দর্শন বিষয়ে মতবিনিময়, পর্যালোচনা এবং মতভিন্নতা বিরাজমান ছিল। এর ক্রমধারায় ম্যূরের সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে রাসেল তার মতাদর্শের পরিবর্তনও করেছিলেন।

এখানে আরো উল্লেখ্য যে, ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র হিসেবে ১৮৯০ সনে যোগদানের পূর্বেও রাসেল নৈতিকতা বিষয়ে রচনা তৈরী করেছিলেন এবং ক্যামব্রিজের ছাত্রাবস্থার পরেও রাসেল তার এই ক্রমধারা চলমান রাখেন। এভাবে ১৮৮৮ থেকে ১৮৯৯ সনের মধ্যে অনেক রচনা তৈরী করেছিলেন, যেগুলো রাসেলের জীবদ্বশায় অপ্রকাশিত থেকে গেছে।

রাসেলের এমন অপ্রকাশিত বারোটি প্রবন্ধের ওপর গবেষণা করে এবং ম্যূরের রচনাবলীর সাথে তুলনামূলক আলোচনা করে অধ্যাপক রাশিদা আখতার খানম দেখিয়েছেন- কিভাবে রাসেলের নৈতিক মতাদর্শের প্রাথমিক পর্যায় গড়ে উঠেছিল।

১৯৮০ থেকে ১৯৮২ সন পর্যন্ত অধ্যাপক রাশিদা আখতার খানম ক্যানাডার ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণকালে ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের রাসেল আর্কাইভে সংরক্ষিত রাসেলের অপ্রকাশিত প্রবন্ধাবলীর মধ্যে বারোটি প্রবন্ধের ওপর গবেষণা করেন এবং ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮২ সনে এমএ ডিগ্রী অর্জন করেন।

নোবেল বিজয়ী রাসেলের জ্ঞানের সূচনা কিভাবে তার তরুণ বয়স থেকে গড়ে উঠেছিল তারই একটা রূপরেখা পাওয়া যাবে অধ্যাপক রাশিদা আখতার খানম রচিত এ গ্রন্থে।

রাশিদা আখতার খানম ঢাকার বিখ্যাত কামরুন্নেসা গার্লস হাইস্কুল থেকে ১৯৬৫ সালে এসএসসি এবং হলিক্রস কলেজ থেকে ১৯৬৭ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯৭০ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিষয়ে বিএ অনার্স ও ১৯৭১ সালে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করে ২০১৬ সালের জুলাই মাস থেকে তিনি অবসর গ্রহণ করেন।

পোষ্টটি লিখেছেন: লেখাপড়া বিডি ডেস্ক

লেখাপড়া বিডি ডেস্ক এই ব্লগে 908 টি পোষ্ট লিখেছেন .

লেখাপড়া বিডি বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।