চবি’র ভর্তি পরীক্ষায় এবার নতুন পদ্ধতি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরিক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নে এবার অংশ নিবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, ভর্তি পরিক্ষার ফলাফল নির্ভুল করার জন্য একবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) কতৃপক্ষ উত্তরপত্র মূল্যায়ন করবে পরে আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ দ্বারা উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, নির্ভুলভাবে ভর্তি পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নের জন্য “ডাবল চেক” পদ্ধতি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে প্রতিবছর প্রতিটি ইউনিটের পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর ওএমআর মেশিনের মাধ্যমে দ্রুতসময়ের মধ্যে মূল্যায়ন করে ফলাফল প্রকাশ করা হতো। এমন পরিস্থিতিতে ফলাফল ভুল হওয়ার কারণে আবার পুনরায় মূল্যায়নের নজিরও রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের। এসব ভুল ঠেকাতে এবার প্রতিটি উত্তরপত্র চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ভর্তি কমিটি একবার মূল্যায়ন করবে এবং পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অটোমেশিন পদ্ধতিতে দায়িত্বে থাকা ভর্তি কমির্টি আরেক বার মূল্যায়ন করবে। পরে আলাদা দুটি ফলাফল যাচাই-বাছাই করে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। তবে এতে ফলাফল প্রকাশ করতে দুদিন সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

অন্যদিকে প্রতিবার ক্যাম্পাসের বাহিরের কেন্দ্রগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দিক থেকে কাউকে রাখা হতো না। ফলে বিভিন্ন জালিয়াতি চক্র নানাভাবে কাজ করেছে বলে জানা যায়। এছাড়াও ওই সকল কেন্দ্র দায়িত্বে থাকা শিক্ষক-কর্মকতা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে জড়িত থাকার অভিযোগ ভর্তিইচ্ছুক শিক্ষার্থীসহ অভিবাবকদের। এসব বিষয় মাথায় রেখে নানান ধরনের জালিয়াতি ঠেকাতে আগে থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ে বাহিরে প্রতিটি কেন্দ্রগুলোতে গোয়েন্দা নজরদারিসহ বিভিন্ন বাহিনী কাজ করবে এবং কেন্দ্রগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. কামরুল হুদা বলেন, ভর্তি পরিক্ষার ফলাফল নির্ভুল করার জন্য একবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়(চবি) কতৃপক্ষ উত্তরপত্র মূল্যায়ন করবে আবার আরেক বার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ উত্তরপত্র মূল্যায়ন করবে। এছাড়াও জালিয়াতি ঠেকাতে এবার সিটপ্ল্যানের ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহিরে প্রতিটি কেন্দ্র অভিজ্ঞ শিক্ষকদের পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কমিটির সহায়তায় ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে চারটি ইউনিটে ভর্তি পরিক্ষা নেওয়া হচ্ছে। এ শিক্ষাবর্ষে আটটি অনুষদেও অধীনে ৪৬ টি বিভাগ ও পাচঁটি ইন্সটিটিউটে মোট ৪৯২৪টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে সাধারন আসন ৪১৮৯ টি এবং কোটায় ৭৩৫টি আসন রয়েছে। আগামী ২৬,২৭,২৮,২৯ অক্টোবর থেকে যথাক্রমে সি, ডি, বি, ও এ ইউনিটের ভর্তি পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি পরিক্ষা সকাল ১০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহিরে শুরু হবে।

পোষ্টটি লিখেছেন: মোহাম্মদ মোহন

মোহাম্মদ মোহন এই ব্লগে 107 টি পোষ্ট লিখেছেন .

মোহাম্মদ মোহন সম্প্রতি নোয়াখালী সরকারি কলেজ, নোয়াখালী থেকে বি.এস.এস (অনার্স), এম.এস.এস (অর্থনীতি) সম্পন্ন করেছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *