৩৬ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নের সমাধান

৩৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ৮ জানুয়ারি ২০১৬ (শুক্রবার) সকাল ৯.৩০টায় শুরু হয়ে  ১১.৩০ টায় শেষ হয়।  ঢাকার ১০৭টিসহ দেশের ১৬২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষায় দুই লাখ ১১ হাজার ৩২৬ জন প্রার্থী এ পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছেন। প্রত্যেকের একটিই আশা সরকারী চাকরি পাওয়া। বাংলাদেশের প্রেক্ষপটে সরকারী চাকরি পাওয়ার জন্য এটি সবচাইহে বড় প্লাটফরম ।

9999এখানে প্রার্থীরা ২০০ নম্বরের বহুনির্বাচনী প্রশ্নের এই পরীক্ষার পর লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ধাপ পার হতে পারলে এদের মধ্যে দুই হাজার ১৮০ জন শেষ পর্যন্ত প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তার পদে যোগ দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ক্যালকুলেটর ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল ৩৫তম বিসিএস থেকেই। এবার হাত ঘড়ি, পকেট ঘড়ি বা ইলেকট্রনিক ঘড়ি ব্যবহারও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এছাড়া মোবাইল ফোন, সব ধরনের ইলেকট্রনিক যোগাযোগ যন্ত্র, বই বা ব্যাগ নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়। প্রশ্নপত্র বিতরণের পর কাওকে কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। পরীক্ষা শেষ না করে কাওকে কেন্দ্র থেকে বের হতেও দেওয়া হয়নি।

প্রার্থীদের সময় জানার জন্য পরীক্ষার হলে প্রয়োজনীয় সংখ্যক দেয়াল ঘড়ির ব্যবস্থা করা হয়। এই নিষেধ না মানলে প্রার্থীতা বাতিলসহ কমিশনের সব পরীক্ষায় অযোগ্য ঘোষণা করা হবে বলে পরীক্ষার্থীদের সতর্ক করা হয়েছিলো।

বিভিন্ন কারণে ৩৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ১৫ জনের প্রার্থিতা বাতিল এবং ২৯ জনকে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন নম্বর দেওয়া হয়েছে।

এ পরীক্ষায় অনিয়ম, অসুদপায় অবলম্বন আ প্রশ্নফাঁস ও জালিয়াতি ঠেকাতে প্রশাসন ক্যাডারের ১১৭ কর্মকর্তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ক্ষমতা দিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগ করে সরকার। পরীক্ষা কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরে তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে পালন করেন। আপনাদের সুবিধার্থে ৩৬ তম বিসিএস এর প্রশ্নের সমাধান নিচে তুলে দেওয়া হলোঃ

[প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্ন-উত্তর ডাউনলোড করুন]

সৌজন্যেঃ resultaid.com

পোষ্টটি লিখেছেন: shaiful

এই ব্লগে 2 টি পোষ্ট লিখেছেন .

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।