২০১৮ সালের এইচ এস সি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল জেনে নিন এখান থেকে

২০১৮ সালের এইচ এস সি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার পাশের হার ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ হাজার ২৬২ জন শিক্ষার্থী।

১৯ জুলাই ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফলের কপি ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট বোর্ড চেয়ারম্যানরা। এরপর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করবেন।

বেলা ২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে সব কলেজ-মাদ্রাসা, এসএমএস ও অনলাইনে ফল জানা যাবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে সহজে সকল বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮ জানা যাবে….

অনলাইনে ফলাফল পাওয়ার পদ্ধতিঃ পরীক্ষার্থীগণ শিক্ষা বোর্ডসমূহের ওয়েবসাইট www.educationboardresults.gov.bdeboardresults.com ছাড়াও সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফল সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার্থে লেখাপড়া বিডি’র এই পোস্টের নিচে প্রদত্ত বক্স থেকেও সরাসরি ফলাফল দেখা যাবে।

অনলাইনে এইচ এস সি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮ জানা যাবে এখানে

সহজে এইচ এস সি রেজাল্ট ২০১৮ পেতে নিচের লিঙ্কগুলো থেকে আপনার কাঙ্খিত বোর্ডের ফলাফল দেখুন।

যশোর বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

কুমিল্লা বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

ঢাকা বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

চট্টগ্রাম বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

সিলেট বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

দিনাজপুর বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

বরিশাল বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

রাজশাহী বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

কারিগরি বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

মাদরাসা বোর্ড এর আলিম পরীক্ষার ফলাফল ২০১৮

 সকল বোর্ড এর ফলাফল দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

মোবাইলে ফলাফল জানার উপায়ঃ যে কোনো মোবাইল থেকে এসএমএসের মাধ্যমে ফল পেতে মেসেজ অপশনে গিয়ে HSC অথবা Alim লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে পাসের সাল লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

উদাহরণ:

সাধারণ বোর্ডের ক্ষেত্রে HSC DHA 123456 2018

মাদ্রাসা বোর্ডের জন্য Alim MAD 123456 2018

এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের জন্য HSC TEC 123456 2018

লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

ফলাফল প্রকাশের ধারাবাহিকতা / এইচ এস সি রেজাল্ট ২০১৮ কবে দিবে? : এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ২রা এপ্রিল শুরু হয়। তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হয় ১৩ মে। ব্যবহারিক পরীক্ষা ১৪ মে শুরু হয়ে ২৩ মে শেষ হয়। বিগত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার ৫৮ দিনে ফল প্রকাশ করা হচ্ছে।

এবারের পরীক্ষার্থী সংখ্যা ও ফলাফলের পরিসংখ্যানঃ এবার ১২ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫৭ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছে। এর মধ্যে ৬ লাখ ৯২ হাজার ৭৩০ জন ছাত্র ও ৬ লাখ ১৮ হাজার ৭২৭ জন ছাত্রী। পাস করেছেন ৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ শিক্ষার্থী, যা গড়ে ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। এর মধ্যে মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ হাজার ২৬২ জন। ছাত্রের পাসের হার ৬৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ, আর ছাত্রীর পাসের হার ৬৯ দশমিক ৭২ শতাংশ।

এইচএসসিতে আটটি সাধারণ বোর্ডের অধীনে অংশ নেয় ১০ লাখ ৯২ হাজার ৬০৭ জন শিক্ষার্থী। আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে আলিমে ১ লাখ ১২৭ জন, কারিগরি বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (বিএম)-এ ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৫৪ জন ও ডিআইবিএসে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৯৬৯।

এছাড়া বিদেশের সাতটি কেন্দ্রে ছিল ২৯৯ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ১৫৯ জন ছাত্র ও ১৪০ জন ছাত্রী।

আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে অর্থাৎ এইচএসসিতে পাস করেছে ৬ লাখ ৯১ হাজার ৯৫৮ শিক্ষার্থী, যা গড়ে ৬৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ। এরমধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৫ হাজার ৫৬২ জন শিক্ষার্থী।

মাদ্রাসা বোর্ডে অর্থাৎ আলিমে এবার পাস করেছে ৭৬ হাজার ৯৩২ জন শিক্ষার্থী, যা গড়ে ৭৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ। এরমধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ২৪৪ জন শিক্ষার্থী।

কারিগরী শিক্ষা বোর্ডে অর্থাৎ ভোকেশনালে এবার পাস করেছে ৮৯ হাজার ৮৯ জন, যা গড়ে ৭৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। এর মধ্যে ২ হাজার ৪৫৬ জন শিক্ষার্থী পেয়েছে জিপিএ-৫। বিভিন্ন বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার পাসের হার এবং জিপিএ ৫ এর সংখ্যা নিচে তুলে দেওয়া হলোঃ

ঢাকা বোর্ডে পাশের হার: ৬৬.১৩%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২ হাজার ৯৩৮ শিক্ষার্থী।

রাজশাহী বোর্ড পাশের হার: ৬৬.৫১%। এই বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ১৩৮ শিক্ষার্থী।

দিনাজপুর বোর্ডে পাশের হার: ৬০.২১%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ২৯৭ শিক্ষার্থী।

যশোর বোর্ডে পাশের হার: ৬০.০৪%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৮৯ শিক্ষার্থী।

চট্টগ্রাম বোর্ডে পাশের হার: ৬২.৭৩%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৬১৩ জন।

কুমিল্লা বোর্ডে পাশের হার: ৬৫.৪২%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৪৪ শিক্ষার্থী।

বরিশাল বোর্ডে পাশের হার: ৭০.৫৫%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৭০শিক্ষার্থী।

সিলেট বোর্ডে পাশের হার: ৬২.১১%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭৩ শিক্ষার্থী।

কারিগরি শিক্ষা পাশের হার: ৭৫.৫০%। জিপিএ -৫ পেয়েছে ২ হাজার ৪৫৬ শিক্ষার্থী।

মাদ্রাসা বোর্ডে পাশের হার: ৭৮.৬৭%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ২৪৪ শিক্ষার্থী।

এক নজরে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের পরিসংখ্যানঃ

বোর্ড

পাসের হার (%)

জিপিএ-৫

পাসের হার (%)

পাসের হার (%)

 

২০১৮

২০১৮

২০১৭

২০১৬

ঢাকা

৬৬.১৩

১২,৯৩৮

৬৯.৭৪

৭৩.৫৩

রাজশাহী

৬৬.৫১

৪,১৩৮

৭১.৩০

৭৫.৪০

কুমিল্লা

৬৫.৪২

৯৪৪

৪৯.৫২

৬৪.৪৯

যশোর

৬০.৪০

২,০৮৯

৭০.০২

৮৩.৪২

চট্টগ্রাম

৬২.৭৩

১,৬১৩

৬১.০৯

৬৪.৬০

বরিশাল

৭০.৫৫

৬৭০

৭০.২৮

৭০.১৩

সিলেট

৬২.১১

৮৭৩

৭২.০০

৬৮.৫৯

দিনাজপুর

৬০.২১

২,২৯৭

৬৫.৪৪

৭০.৬৪

মাদ্রাসা

৭৮.৬৭

১,২৪৪

৭৭.০২

৮৮.১৯

কারিগরি

৭৫.৫০

২,৪৫৬

৮১.৩৩

৮৪.৫৭

ডিআইবিএস (ঢাকা)

৮৭.৮২

০০

৭১.৫৮

৮১.৪৬

মোট

৬৬.৬৪

২৯,২৬২

৬৮.৯১

৭৪.৭০

ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণঃ পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ফলাফল প্রকাশের পর দিন থেকে এক সপ্তাহ আবেদন গ্রহণ করা হবে।

এজন্য শুধু টেলিটক মোবাইল থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে স্পেস দিয়ে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

প্রতিটি বিষয় বা পত্রের জন্য ১৫০ টাকা ফি প্রযোজ্য।

ফিরতি এসএমএসে আবেদন ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন নম্বর দেওয়া হবে। আবেদনে সম্মত থাকলে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে মোবাইল নম্বর দিয়ে পূণরায় ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (যেমন: বাংলা ও ইংরেজি) রয়েছে, সেসব বিষয়ে একটি বিষয় কোডের বিপরীতে আবেদন দুটি পত্রের আবেদন হিসেবে বিবেচিত হবে এবং আবেদন ফি ৩০০ টাকা ফি নেওয়া হবে।

একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের আবেদন করা যাবে, এক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে কমা দিয়ে লিখতে হবে। পুনঃনিরীক্ষণ সংক্রান্ত বিস্তারিত নির্দেশনা পাবেন এই লিঙ্কে

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 567 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক হিসেবে নিয়োজিত আছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করে আজম খান সরকারী কমার্স কলেজে এমবিএ করছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।