web tracker

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি (KUET) ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত তথ্য

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ২০১৬-২০১৭ ইং শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ বিএস-সি ইঞ্জিনিয়ারিং, বিইউআরপি ও বিআর্ক কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ২৮ অক্টোবর (শুক্রবার) সকাল ৯:৩০টা হতে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কুয়েটসহ সাতটি প্রতিষ্ঠানে একসাথে অনুষ্ঠিত হবে।

kuet-Logo

চলতি শিক্ষাবর্ষে ৩টি অনুষদের ১৪টি বিভাগে মোট ১০০৫ টি আসনের বিপরীতে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১২,৭১৭ জন। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় অনলাইনের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রাপ্ত ১২,৭৬৮ টি আবেদনের মধ্যে বৈধ ১২,৭১৭ জন আবেদনকারীর সবাই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ পাচ্ছে।

ভর্তি পরীক্ষা কুয়েট ক্যাম্পাস (১০০০১-১৮৩০৯), নিকটস্থ টিচার্স ট্রেনিং (টিটি) কলেজ (১৮৩১০-১৯০৫৯), এইচএসটিটিআই (১৯০৬০-১৯৩৫৯), গভ. ল্যাবরেটরী হাই স্কুল (১৯৩৬০-২০০১৫), টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার, বয়েজ (২০০১৬-২০৬৮০), টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার, গার্লস (২০৬৮১-২১০৪৫) ও নগরীর বয়রাস্থ খুলনা সরকরি মহিলা কলেজে (২১০৪৬-২২৭১৭) অনুষ্ঠিত হবে।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ও ব্যাচেলার অব আরবান অ্যান্ড রিজিওনাল প্লানিং (বিইউআরপি) কোর্সের ভর্তি জন্য অনলাইনে আবেদন পূরণ ১৯ সেপ্টেম্বর  সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলে। এছাড়া এ, টি বা পি চিহ্নিত আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিলো ২৯ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয় ৯ অক্টোবর।

ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের ঠিকানাঃ admission.kuet.ac.bd

প্রবেশপত্র ডাউনলোড ও আসন বিন্যাস জানতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তারিখসমূহঃ

☞ অনলাইন আবেদনপত্র পূরণ ও জমা শুরুঃ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখ সকাল ১০.০০ টা থেকে।

☞ আবেদনের আবেদনপত্র পূরণ ও জমা শেষঃ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখ রাত ১১.৫৯ টা পর্যন্ত।

☞A,T বা P চিহ্নিত আবেদনপত্র জমা দেওয়া শেষঃ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখ বিকাল ৫ঃ০০ টা পর্যন্ত।

ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশঃ ০৭ অক্টোবর ২০১৬ তারিখ।

☞ ভর্তি পরীক্ষার তারিখঃ ২৮ অক্টোবর, ২০১৬ সকালঃ ৯.৩০ হতে দুপুর ১২.০০ টা পর্যন্ত ।

ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী প্রার্থীদের মেধাক্রমের তালিকা প্রকাশ, বিভাগ পছন্দ প্রদানের নির্দেশনা, ভর্তির নিয়মাবলী ও ভর্তির তারিখ ঘোষণাঃ ৩০ অক্টোবর ২০১৬ তারিখ।

আবেদনের জন্য যোগ্যতাঃ
☞ আবেদনকারীকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
☞ আবেদনকারীকে ২০১৬ সালের এইচএসসি/সমমানের পরীক্ষায় পাস করতে হবে।
☞ আবেদনকারীকে বাংলাদেশের যেকোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড / মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড / কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে মাধ্যমিক / সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ ৪ / তার সমমানের ফলাফল করতে হবে।
☞ আবেদনকারীকে উচ্চ মাধ্যমিক/ আলীম/ সমমানের পরীক্ষায় বাংলাদেশের যেকোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড / মাদ্রাসা বোর্ড / কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে অবশ্যই  মোট জিপি ১৯ (উনিশ) পেতে হবে । এছড়া বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হতে হলে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় জীব বিজ্ঞানে কমপক্ষে জিপি ৪ (চার) থাকতে হবে।
☞ আবেদনকারী যদি GCE ‘O’ Level /’A’ Level এর পরীক্ষার্থী হয়, তবে তাকে GCE ‘O’ Level পরীক্ষায় কমপক্ষে পাঁচটি বিষয়ে ন্যুনতম “B” গ্রেড পেয়ে পাশ করতে হবে। GCE ‘A’ Level পরীক্ষাতে পদার্থবিজ্ঞান,রসায়ন এবং গণিত এই তিন বিষয়ের প্রত্যেকটিতে অবশ্যই B grade পেয়ে পাশ হতে হবে।

আসন সংখ্যাঃ

পুরকৌশল অনুষদ

☞ Civil Engineering – CE – ১২০

☞ Building Engineering and Construction Management – BECM – ৬০

☞ Urban and Regional Planning – URP – ৬০

☞ Architecture – ARCH – ৪০

তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক অনুষদ

☞ Electrical and Electronic Engineering – EEE- ১২০

☞ Computer Science and Engineering – CSE- ১২০

☞  Electronics and Communication Engineering – ECE – ৬০

☞ Biomedical Engineering – BME – ৩০

☞ Material Science & Engineering – MSE – ৬০

যন্ত্রকৌশল অনুষদ

☞ Mechanical Engineering – ME -১২০

☞ Industrial and production Engineering – IPE – ৬০

☞ Leather Engineering – LE -৬০

☞ Textile Engineering – TE – ৬০
☞ Energy Science Engineering – ESE – ৩০

☞ সংরক্ষিত আসন সংখ্যা – ০৫

☞ সর্বমোট আসন সংখ্যা = ১০০৫ টি।

ভর্তি পরীক্ষার মানবণ্টন:
মোট ১০০টি mcq,৫০০ নম্বর ।
পদার্থ(৬x২৫=১৫০)
রসায়ন(৬x২৫=১৫০)
গনিত(৬x২৫=১৫০)
ইংরেজি(২x২৫=৫০)

KUET এ ভর্তির পদ্ধতি তিন ভাগে বিভক্তঃ

১. যোগ্যতা সম্পন্ন আবেদনকারীকে তার শিক্ষাগত যোগ্যতা, ব্যক্তিগত তথ্য এবং আবেদন ফী জমা দিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

আবেদন ফি অবশ্যয় teletalk এর pre-paid সিম এর মাধ্যমে জমা দিতে হবে। নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আবেদন ফর্ম জমা হবার পর যাচাই-বাছায়ের পর সেরা ১০,০০০ (দশ হাজার) আবেদনকারীকে ভর্তি পরীক্ষার জন্য select করা হবে ।

যদি ১০,০০০ তম আবেদনকারী একের অধিক হয়, তাহলে গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন এবং ইংরেজি তে যথাক্রমে এইচ,এস,সি এবং এস,এস,সি তে প্রাপ্ত জিপিএ’র ভিত্তিতে নির্দিষ্ট সংখ্যক আবেদনকারীকে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য চূড়ান্ত করা হবে ।

২. এরপর ভর্তি পরীক্ষা। পরীক্ষা হবে MCQ পদ্ধতিতে। পরীক্ষার্থীদের ভেতর top ১০০০ জন পরীক্ষার্থী KUET এ ভর্তির জন্য select করা হবে (merit list এ থাকবে ১০০০ জন। এছাড়া waiting list ও প্রদান করা হবে) ।

৩. পরবর্তীতে নির্দিষ্ট দিনে উপরে উল্লেখিত ১০০০ জন বোর্ড থেকে প্রদত্ত আসল শিক্ষাগত যোগ্যতার ডকুমেন্ট প্রদান, ভর্তি ফী প্রদান এবং স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে KUET এ ভর্তি হতে হবে । ভর্তির সময় মেরিট পজিশন অনুযায়ী আবেদনকারী তার সাব্জেক্ট চয়েজ প্রদান করতে পারবে। যদি কোন শিক্ষার্থী ক্লাস শুরু হবার পর টানা ২ সপ্তাহ অনুপস্থিত থাকে তাহলে তার ভর্তি বাতিল বলে বিবেচিত হবে ।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (KUET) ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

KUET Admission test circular 2016-17

[KUET ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ডাউনলোড]

২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে কুয়েটসহ বাংলাদেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি তথ্য, প্রবেশপত্র ডাউনলোড এর তারিখ, ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ও অন্যান্য সর্বশেষ তথ্য জানতে নিয়মিত লেখাপড়া বিডি ডট কম এর ভর্তি তথ্য বিভাগ ভিজিট করুন।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 541 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করছেন ।


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*