web site hit counter

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন এর বিস্তারিত তথ্য

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম সমার্বতন আগামি ১৭ই জানুয়ারি ২০১৭ মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতির আসন অলঙ্কৃৃত এবং স্নাতকদের ডিগ্রি প্রদান করবেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় চ্যান্সেলর জনাব মোঃ আবদুল হামিদ। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখবেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের মাননীয় চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন অনলাইনে সরাসরি দেখুন এখান থেকে

এ সমাবর্তনে মোট ৪ হাজার ৯ শত ৩৪ জন গ্র্যাজুয়েটস নিবন্ধন করেন, যাদের মধ্যে মেয়ে ৩ হাজার ১ শত ৩৭ জন এবং ছেলে ১ হাজার ৭ শত ৯৫ জন অর্থাৎ মেয়েদের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুন।

সমাবর্তন উপলক্ষে দৈনিক পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ, ডকুমেন্টারি তৈরি, বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাস ও বিভাগীয় শহরের ৬টি আঞ্চলিক অফিসে আলোকসজ্জা ইত্যাদির ব্যবস্থা করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ২৪ বছরে এই ১ম সমাবর্তন আয়োজন করায় এটিকে স্মরণীয় করে রাখতে ১২ই জানুয়ারি ২০১৭ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ঢাকা শহর ও ৬টি বিভাগীয় শহরে ছাত্র-শিক্ষকদের অংশগ্রহণে একই সময় অভিন্ন ব্যানারে ‘আনন্দ শোভাযাত্রা’র আয়োজন করা হয় যা ঢাকায়  জাতীয় যাদুঘরের সম্মুখ থেকে শুরু করে বাংলা একাডেমি ও দোয়েল চত্বর হয়ে এটি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে সমাপ্ত হবে। এ ‘আনন্দ শোভাযাত্রায়’ মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী জনাব নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি ও ইউজিসি’র মাননীয় চেয়ারম্যান উপস্থিত থেকে তাতে নেতৃত্বদান করেন।

সমাবর্তনের চুড়ান্ত তালিকা, ভেন্যু ও অন্যান্য তথ্যঃ সমাবর্তনে চুড়ান্ত তারিখ, সময়, অনুষ্ঠানসূচী, অংশগ্রহণকারীদের চূড়ান্ত তালিকা এবং কোন ভেন্যুতে আসন গ্রহণ করবেন সে সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য পাবেন এই লিঙ্কে

সমাবর্তনে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধনকৃত গ্র্যাজুয়েটদের সমাবর্তন গাউন নিম্নোক্ত সিডিউল অনুযায়ী বিতরণ করা হয়।

১৩-১-২০১৭ (শুক্রবার) সকাল ৯:৩০-রাত ১০টা

১৪-১-২০১৭ (শনিবার) সকাল ৯:৩০-রাত ১০টা

১৫-১-২০১৭ (রবিবার) সকাল ৯:৩০-রাত ১০টা

১৬-১-২০১৭ (রবিবার) সকাল ৯:৩০-রাত ১০টা

স্থানঃ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর কার্যালয়, বাড়ি # ৫৮, রোড # ৮/এ, ধানমন্ডি, ঢাকা।

নিজে সশরীরে উপস্থিত হয়ে বা প্রত্যায়িত প্রতিনিধির মারফত উল্লিখিত সময়সূচি অনুযায়ী সমাবর্তন গাউন সংগ্রহ করা যাবে এবং গাউন সংগ্রহের সময় প্রামাণপত্র হিসেবে নিবন্ধনের কনফার্মেশন কপি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সঙ্গে আনতে হবে।

সমাবর্তনে অংশগ্রহণকারী গ্রাজুয়েটবৃন্দের চূড়ান্ত তালিকা এবং কে কোন কোন আসন গ্রহণ করবেন তা যথাসময়ে জাতীয় বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট, কনভোকেশন সাইট এর পাশাপাশি লেখাপড়া বিডি থেকেও জানা যাচ্ছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনের জন্য নিবন্ধনকৃত সম্মানিত গ্র্যাজুয়েটদের চূড়ান্ত তালিকা ডাউনলোড

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে নিবন্ধনকৃত গ্র্যাজুয়েটদের দৃষ্টি আকর্ষণ

  • সমাবর্তন ভেন্যুতে গাউন পরিধান করে আসতে হবে।
  • আমন্ত্রণ পত্রের খামের ওপর সীলমোহর অনুযায়ী নির্ধারিত হলে সরাসরি প্রবেশ করে আসন গ্রহণ করতে হবে।
  • মহামান রাস্ট্রপতি সমাবর্তন শোভাযাত্রা সহযোগে মিলনায়তনে প্রবেশ করার সাথে সাথে সবাইকে উঠে দাঁড়াতে হবে। এ সময় জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হবে। মহামান্য রাস্ট্রপতি আসন গ্রহণ করার পর সবাই আসন গ্রহণ করবেন।
  • স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক  স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোবাশ্বেরা খানম স্নাতক, স্নাতক (সম্মান) এবং স্নাতক ও স্নাতক (সম্মান) পর্যায়ের সকল প্রফেশনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ গ্রাজুয়েটদের মাননীয় চ্যান্সেলর কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে ডিগ্রি প্রদান করার লক্ষ্যে তাঁর সমীপে উপস্থাপন করার ঘোষণা দেয়ার সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট গ্রাজুয়েটবৃন্দ নিজ নিজ আসনের সম্মুখে ওঠে দাঁড়াবেন।
  • স্নাতকোত্তর শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন মাস্টার্স ও সমমানের সকল প্রফেশনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের এবং এম.ফিল ও পিএইচ.ডি অর্জনকারী গবেষকবৃন্দকে একসঙ্গে মাননীয় চ্যান্সেলর কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে ডিগ্রি প্রদান করার লক্ষ্যে তাঁর সমীপে উপস্থাপন করার ঘোষণা দেয়ার সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট সকলে নিজ নিজ আসনের সম্মুখে উঠে দাঁড়াবেন এবং মাননীয় চ্যান্সেলর কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে সকল পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের এক সঙ্গে ডিগ্রি প্রদান করার পর সকলে আসন গ্রহণ করবেন।
  • মাননীয় চ্যান্সেলর কর্তৃক সমাবর্তন অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণার পর জাতীয় সঙ্গীত বেজে উঠবে। অতঃপর মাননীয় চ্যান্সেলর শোভাযাত্রা সহযোগে সমাবর্তন ত্যাগ না করা পর্যন্ত সকলে নিজ নিজ আসনের সম্মুখে দাঁড়িয়ে থাকবেন।
  • মহামান্য রাস্ট্রপতি  প্রস্থানের পর গ্র্যাজুয়েটবৃন্দ খাবার কুপন দেখিয়ে যেকোনো কাউন্টার থেকে খাবার গ্রহণ করতে পারবেন।
  • গ্রাজুয়েটগণ সমাবর্তন ভেন্যুর অভ্যন্তরে ও বাইরে স্থাপিত একাধিক ফটোকর্ণারে গাউন পরে ছবি তুলতে পারবেন। ছবি তোলার পর অবশ্যই নির্ধারিত কাউন্টারে গাউন জমা দিয়ে সমাবর্তন স্থল ত্যাগ করবেন।

এর আগে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটস যারা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সফলভাবে শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করার  পর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ হয়েছেন তাদেরকে এ সমাবর্তনে অংশগ্রহণ এর জন্য রেজিস্ট্রেশন আহ্বান করা হয়। এই সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিচে তুলে দেওয়া হলোঃ

যারা অংশ গ্রহণ করতে পারবেনঃ

  • ১৯৯৮ সাল থেকে ২০১২ সালের ডিগ্রি পাস পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০০ সাল থেকে ২০১২ সালের অনার্স ফাইনাল পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০০ সাল থেকে ২০১২ সালের মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৭ সাল থেকে ২০১২ সালের বিবিএ পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৩ সাল থেকে ২০১২ সালের এমবিএ পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৭ সাল থেকে ২০১৩ সালের বিএড (অনার্স) পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৬ সাল থেকে ২০১২ সালের এমএড পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৮ সাল থেকে ২০১২ সালের বিএসসি অনার্স ইন কম্পিউটার সায়েন্স (সিএসসি) পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৭ সাল থেকে ২০১২ সালের বিএফএ (অনার্স) পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৯ সাল থেকে ২০১২ সালের বিএফএ (পাস) পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০১০ সাল থেকে ২০১১ সালের ইসিই পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৩ সাল থেকে ২০১২ সালের এলএলবি (ফাইনাল) পরীক্ষার্থীরা।
  • ২০০৩ সাল থেকে ২০১০ সালের এম.এস.সি. ইন সিএসই পরীক্ষার্থীরা।

এছাড়া জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অঙ্গীভূত ইন্সটিটিউটসমূহের থেকে পিএইচ.ডি/এম ফিল/এম.এ.এস/এম.এস ডিগ্রি প্রাপ্ত গবেষকরাও সমাবর্তনে অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন এর সুযোগ পায়।

রেজিস্ট্রেশনের পদ্ধতিঃ অনলাইনে www.convocation.nu.edu.bd ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া চলে। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত নির্দেশিকা পাবেন এই লিঙ্কে

রেজিস্ট্রেশন ফিঃ সমাবর্তন রেজিস্ট্রেশন ফি ছিলো ২৫০০ টাকা এবং সনদ প্রতি ফিস ৫০০ টাকা।

রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধের পদ্ধতিঃ অনলাইনে সোনালী সেবা, ডিবিবিএল মোবাইল ব্যাংকিং এবং ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড (MasterCard, Visa, Nexus) এর মাধ্যমে প্রদান এর সুযোগ দেওয়া হয়। রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পাবেন এই লিঙ্কে

বি.দ্রঃ অনলাইন ব্যতিত অন্য কোনভাবেই সমাবর্তনের রেজিস্ট্রেশন ফিস গ্রহণ করা হয় না।

আবেদনের সময়সীমাঃ সমাবর্তনের জন্য রেজিস্ট্রেশনের শেষ সময় ছিলো ০৮-০৬-২০১৬ তারিখ পর্যন্ত।

পোষ্টটি লিখেছেন: লেখাপড়া বিডি ডেস্ক

লেখাপড়া বিডি ডেস্ক এই ব্লগে 764 টি পোষ্ট লিখেছেন .


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.