web site hit counter

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স প্রিলিমিনারি ভর্তির মাইগ্রেসন ও কোটার ফলাফল দেখবেন যেভাবে

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স ১ম পর্ব (নিয়মিত) ভর্তি কার্যক্রম এর ১ম মেধা তালিকার বিষয় পরিবর্তন ও কোটার মেধা তালিকা ২২ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ প্রকাশ করা হবে।

২২ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ বিকাল ৪টার পরে যে কোন সময় এস.এম.এস  এবং রাত ৯টার পরে অনলাইনে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। অনলাইনে ফলাফল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের পাশাপাশি লেখাপড়া বিডি থেকেও দেখা যাবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক ফলাফল জানার নিয়ম সমূহঃ

মোবাইলে ফলাফল দেখার পদ্ধতঃ ২২ নভেম্বর বিকেল ৪টা থেকে এস.এম.এস এর মাধ্যমে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। এস.এম.এস এ ফলাফল দেখার নিয়ম নিচে দেওয়া হলোঃ

NU<space>ATMP<space>Roll No.

লিখে ১৬২২২ নম্বরে মেসেজ সেন্ড করে ফলাফল জানা যাবে।

অনলাইনে ফলাফল দেখার পদ্ধতিঃ অনলাইনে ফলাফল দেখতে নিচে আপনার ভর্তির রোল নম্বর ও পিন নম্বর লিখে লগিন করতে হবেঃ

মাস্টার্স মাস্টার্স প্রিলিমিনারি ভর্তির কোটা ও মাইগ্রেশনের ফলাফল দেখতে লগিন করুন এখানেঃ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল সাইট থেকে ফলাফল জানতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

ভর্তি সংক্রান্ত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও তারিখঃ

মাইগ্রেশন এর ক্ষেত্রেঃ

  • ১ম মেধা তালিকায় ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে যাদের বিষয় পরিবর্তন হবে তাদের পরিবর্তিত বিষয়ের ফরম প্রিন্ট করে সংশ্লিষ্ট কলেজে জমা দেয়ার তারিখঃ ২২/১১/২০১৫ থেকে ২৬/১১/২০১৬
  • কোন শিক্ষার্থীর মাইগ্রেশন করে বিষয় পরিবর্তন হলে তার পূর্বের বিষয়ের ভর্তি বাতিল হয়ে যাবে এবং পরিবর্তিত বিষয়ে তার ভর্তি নিশ্চিত হবে৷ তবে কোন শিক্ষার্থীর বিষয় পরিবর্তন না হলে তার পূর্বের বিষয়ে ভর্তি বহাল থাকবে ৷
  • বিষয় পরিবর্তনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে নতুন করে কোন ফি প্রদান করতে হবে না।
  • বিষয় পরিবর্তনের ফরম সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক অনলাইনে নিশ্চয়ন করতে হবে না৷

কোটার ক্ষেত্রেঃ

  • কোটার মেধা তালিকায় স্থান প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অনলাইনে চূরান্ত ভর্তি ফরম পূরণ করার তারিখঃ ২২/১১/২০১৫ থেকে ২৬/১১/২০১৬
  • ভর্তি ফি সহ কলেজে ভর্তি ফরম জমা দেওয়ার তারিখঃ ২৩/১১/২০১৫ থেকে ২৭/১১/২০১৬

ভর্তি হতে যে সকল কাগজপত্র লাগবেঃ

  • অনলাইন থেকে মূল আবেদন ফর্মের – ২ সেট ( অবশ্যই A4 অফসেট সাদা কাগজে কালার প্রিন্ট করতে হবে)।
  • প্রাথমিক আবেদনের প্রবেশপত্র -২সেট।
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি ৪টি এবং স্ট্যাম্প সাইজ ৪টি পেছনে নাম লিখে দিতে হবে (কলেজভেদে কম বেশি হতে পারে)।
  • স্নাতক (পাস) এর সনদপত্র/প্রশংসা পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি – ২ সেট।
  • স্নাতক (পাস) পরীক্ষার নম্বরপত্র।
  • স্নাতক (পাস) পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত ফটোকপি – ২ সেট।
  • টাকা জমার রশিদ।
  • চারিত্রিক সনদপত্র (সাধারণত লাগেনা, কোন কোন কলেজে লাগতে পারে) – ২ টি।

উল্লেখ্য, সকল কাগজপত্র ২ কপি করে ২ সেট বানাতে হবে যার এক কপি বিভাগীয় সেমিনারে এবং এক কপি অফিসে জমা দিতে হবে।

কোটার মেধাতালিকায় সুযোগ পাননি?

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ফলাফল কয়েকটি ধাপে প্রকাশ করে। যেমনঃ

সুতরাং পরবর্তীতে রিলিজ স্লিপের আবেদন করে মেধা তালিকায় স্থান পেলে কোন না কোন কলেজে ভর্তি হতে পারবেন।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 533 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। বর্তমানে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স করছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজে।


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

One comment

  1. masters final part Admission online forom puron korar somoy roll number invalid dekhay kno ?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.