২০১৬ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল দেখুন এখান থেকে

২০১৫ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল ২৯ ডিসেম্বর প্রকাশ হয়েছে। ওইদিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে গণভবনে ফল‍াফল হস্তান্তর করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এবং দুপুরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী।
উক্ত ফলাফল দুপুর ১:৩০ টার পর এসএমএস ও অনলাইনে প্রকাশ করা হয়। এবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় পাসের হার ৯৮ দশমিক ৫১ শতাংশ এবং ইবতেদায়ীতে ৯৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ। প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ লাখ ৮১ হাজার ৮৯৮ শিক্ষার্থী। আর ইবতেদায়িতে পেয়েছে ৫ হাজার ৯৪৮ শিক্ষার্থী।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট এর পাশাপাশি লেখাপড়া বিডি থেকেও অনলাইনে ফলাফল জানতে পারবেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে জানবেন এই ফলাফল…

PSC Exam Result

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল ২০১৬

মোবাইল ব্রাউজার থেকে ফলাফল দেখতে সমস্যা হলে এখানে ক্লিক করুন

 প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ফলাফল ২০১৬ ডাউনলোড (সকল জেলা)

ঢাকা বিভাগ —– > নরসিংদী, গাজীপুর, শরীয়তপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর,
চট্টগ্রাম বিভাগ —>> কুমিল্লা, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, রাঙ্গামাটি, নোয়াখালী, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান,
খুলনা বিভাগ — > যশোর, সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, নড়াইল, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, মাগুরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝিনাইদহ,
সিলেট বিভাগ — > সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ,
রাজশাহী বিভাগ — > সিরাজগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, রাজশাহী, নাটোর, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ,
বরিশাল বিভাগ — >> ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, বরিশাল, ভোলা, বরগুনা,
রংপুর বিভাগ —– > পঞ্চগড়, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, নীলফামারী, গাইবান্ধা, ঠাকুরগাঁও, রংপুর, কুড়িগ্রাম,
ময়মনসিংহ বিভাগ —- > শেরপুর, ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোণা,

ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী ফলাফল ২০১৬ ডাউনলোড (সকল জেলা)  

ঢাকা বিভাগ —– > নরসিংদী, গাজীপুর, শরীয়তপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর,
চট্টগ্রাম বিভাগ —>> কুমিল্লা, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, রাঙ্গামাটি, নোয়াখালী, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান,
খুলনা বিভাগ — > যশোর, সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, নড়াইল, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, মাগুরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝিনাইদহ,
সিলেট বিভাগ — > সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ,
রাজশাহী বিভাগ — > সিরাজগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, রাজশাহী, নাটোর, জয়পুরহাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ,
বরিশাল বিভাগ — >> ঝালকাঠি, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, বরিশাল, ভোলা, বরগুনা,
রংপুর বিভাগ —– > পঞ্চগড়, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, নীলফামারী, গাইবান্ধা, ঠাকুরগাঁও, রংপুর, কুড়িগ্রাম,
ময়মনসিংহ বিভাগ —- > শেরপুর, ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোণা,

অনলাইনে পিএসসি পরীক্ষার ফলাফল দেখবেন যেভাবেঃ

মোবাইলে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ২০১৬ এর ফলাফল দেখার নিয়মঃ

প্রাথমিক ও শিক্ষা সমাপনীঃ

DPE<space> আপনার উপজেলা/থানার কোড <space>রোল নম্বর<space>পাশের বছর

এরপর Send করুন 16222 নম্বরে।

উদাহরণ: DPE 20608 34589 2016 Send করুন 16222 নম্বরে।

ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনীঃ

মাদ্রাসা বোর্ডের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফলাফল পেতে শুধু DPE এর স্থলে EBT লিখতে হবে। বাকি নিয়ম অপরিবর্তিত থাকবে।

উদাহরণঃ EBT 20608 34589 2016 Send করুন 16222 নম্বরে।

থানা উপজেলা কোড ডাউনলোড করুন

অ্যানড্রায়েড মোবাইলে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফলাফলঃ

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষার ফল অ্যানড্রয়েড মোবাইলেও জানা যাবে। থেকে যেকোনো অ্যানড্রয়েড মোবাইল থেকে Primary Terminal Result (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.coderainbd.primaryterminalresult) অ্যাপস এর মাধ্যমে ফলাফল পাওয়া যাবে।

এ বছর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ীতে দেশের বাইরে ১১টিসহ সারাদেশে সাত হাজার ১৯৪টি কেন্দ্রে গত ২০ নভেম্বর থেকে এ পরীক্ষায় শুরু হয়ে শেষ হয় ২৭ নভেম্বর।

প্রাথমিক সমাপনীতে ২৮ লাখ ৩০ হাজার ৭৩৪ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এরমধ্যে ১২ লাখ ৯০ হাজার ২৯৫ জন ছাত্র এবং ১৫ লাখ ৪০ হাজার ৪৩৯ জন ছাত্রী। উত্তীর্ণদের মধ্যে ১২ লাখ ৭০ হাজার ২২২ জন ছাত্র এবং ১৫ লাখ ১৮ হাজার ২১০ জন ছাত্রী।

প্রাথমিক সমাপনীতে অংশগ্রহণ এবং পাসের দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে মেয়েরা, ছাত্রদের পাসের হার ৯৮ দশমিক ৪৪ শতাংশ এবং ছাত্রীদের পাসের হার ৯৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ।

প্রাথমিকে পাসের হারে সাত বিভাগের মধ্যে বরিশালে সর্বোচ্চ ৯৯ দশমিক ০৯ শতাংশ, আর জেলার মধ্যে মুন্সিগঞ্জে সর্বোচ্চ ৯৯ দশমিক ৯২ শতাংশ। ৫০৮ উপজেলা/থানার মধ্যে ১৭টি উপজেলায় শতভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে।

সারা দেশে প্রাথমিক সমাপনীতে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ৪ হাজার ৩৩২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৪ হাজার ১৬৫ জন পাস করেছে। পাসের হার ৯৬ দশমিক ১৪ শতাংশ।

অন্যদিকে, ইবতেদায়িতে ২ লাখ ৫৭ হাজার ৫০০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১ লাখ ৩০ হাজার ৮৭৩ জন ছাত্র এবং ১ লাখ ২৬ হাজার ৬২৭ জন ছাত্রী। মোট ২ লাখ ৪৬ হাজার ৮১৮ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। উত্তীর্ণদের মধ্যে ১ লাখ ২৫ হাজার ১৬০ জন ছাত্র ও ১ লাখ ২১ হাজার ৬৫৮ জন ছাত্রী।

ইবতেদায়িতে ছাত্রদের পাসের হার ৯৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ এবং ছাত্রীদের ৯৬ দশমিক ০৮ ভাগ।

ইতেদায়িতে রাজশাহী বিভাগের ৯৮ দশমিক ০৩ শতাংশ পাসের হার নিয়ে সবার শীর্ষে এবং লালমনিরহাট জেলা ৯৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ হার নিয়ে সারা দেশে শীর্ষে। ১০৫ উপজেলায় শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে ইবতেদায়িতে।

বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ২০৯ জন শিক্ষার্থী ইবতেদায়িতে অংশ নিয়ে পাস করেছে ১৯৮ জন, পাসের হার ৯৪ দশমিক ৭৪ শতাংশ।

পাশের হারঃ পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় এবার সারা দেশে ৯৮ দশমিক ৫১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এর মধ‌্যে বরিশাল বিভাগে পাসের হার সবচেয়ে বেশি ৯৯ দশমিক ০৯ শতাংশ।
ঢাকা বিভাগে পাসের হার ৯৮.৫৪  শতাংশ, রাজশাহী বিভাগে পাসের হার ৯৮.৫৭ শতাংশ, খুলনা বিভাগে পাসের হার ৯৮.৬৪ শতাংশ, চট্টগ্রাম বিভাগে পাসের হার ৯৮.৭৫ শতাংশ, বরিশাল বিভাগে পাসের হার ৯৯.০৯ শতাংশ, সিলেট বিভাগে পাসের হার ৯৭.২৫ শতাংশ ও রংপুর বিভাগে পাসের হার ৯৮.৩৪ শতাংশ।

বিভিন্ন বিভাগের পাশের হার

বিভাগ

পাশের হার (%)

জিপিএ-৫ (জন)

ঢাকা

৯৮.৫৪

১,১৮,০৯৬

রাজশাহী

৯৮.৫৭

৩১,৬৬৪

খুলনা

৯৮.৬৪

২৫,০৮৯

চট্টগ্রাম

৯৮.৭৫

৫৬,৪১৩

বরিশাল

৯৯.০৯

১০,৮৩১

সিলেট

৯৭.২৫

৭,৩০৮

রংপুর

৯৮.৩৪

৩১,৪৯৭

মোট

৯৮.৫১

২,৮১,৮৯৮

বর্তমানে আটটি বিভাগ হলেও ময়মনসিংহ বিভাগের জন‌্য আলাদা ফলাফল তৈরি করেনি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, ময়মনসিংহ যে নতুন বিভাগ হয়েছে সেকথা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের মাথায়ই ছিল না, পরের বছর বিষয়টি আমলে রাখা হবে।

প্রাথমিক ও এবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী বৃত্তির ফলাফলঃ প্রাথমিক ও এবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী বৃত্তির ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর পাওয়া যাবে এই লিঙ্ক থেকে

পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ২০০৯ সাল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয়। আর ইবতেদায়ীতে এই পরীক্ষা শুরু হয় ২০১০ সালে। প্রথম দুই বছর বিভাগভিত্তিক ফল দেওয়া হলেও ২০১১ সাল থেকে গ্রেডিং পদ্ধতিতে ফল দেওয়া হচ্ছে। ২০১৩ সাল থেকে এই পরীক্ষার সময় আধা ঘণ্টা বাড়িয়ে আড়াই ঘণ্টা করা হয়।

পোষ্টটি লিখেছেন: লেখাপড়া বিডি ডেস্ক

লেখাপড়া বিডি ডেস্ক এই ব্লগে 744 টি পোষ্ট লিখেছেন .


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

One comment

  1. জুনিয়র নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্নের সমাধান চাই।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.