web tracker

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স প্রিলিমিনারি ভর্তির ১ম মেধা তালিকার ফলাফল ও ভর্তি নির্দেশনা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স ১ম পর্ব (নিয়মিত) অর্থাৎ মাস্টার্স প্রিলিমিনারি কোর্সে ভর্তির ১ম তালিকার ফলাফল ১০ নভেম্বর ২০১৬ তারিখ প্রকাশ করা হয়েছে।

বিকাল ৪টার পর থেকে প্রথমে এস.এম.এস এর মাধ্যেম প্রকাশ করা হয় এবং রাত ৯টার পর থেকে অনলাইনে ফলাফল প্রকাশ করা হয়। অনলাইনে ফলাফল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের পাশাপাশি লেখাপড়া বিডি থেকেও জানা যাবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক এসএমএস ও অনলাইনের মাধ্যমে ফলাফল জানবেন কিভাবেঃ

মোবাইলে ফলাফল দেখার নিয়মঃ ১০নভেম্বর ২০১৬ তারিখ বিকেল ৪টার পরে প্রথমে মোবাইলে এস.এম.এস এর মাধ্যমে ফলাফল করা হয়। এস.এম.এস এ ফলাফল দেখার পদ্ধতি নিচে দেওয়া হলোঃ

NU<space>ATMP<space>Roll No

লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে ফলাফল জানা যাবে।

এখানে, NU= National University
ATMP= Admission Test Masters Preliminary
Admission Roll No= অনলাইনে ভর্তির আবেদন ফরমে প্রাপ্ত রোল নম্বর বোঝানো হয়েছে।

অনলাইনে ফলাফল দেখার নিয়মঃ ১০নভেম্বর ২০১৬ তারিখ রাত ৯টার পর অনলাইনে ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ফলাফল দেখতে নিচে আপনার ভর্তির রোল নম্বর ও পিন নম্বর লিখে লগিন করতে হবেঃ

মাস্টার্স প্রিলিমিনারি ভর্তির ফলাফল দেখতে লগিন করুন এখানেঃ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ফলাফল দেখতে ও ভর্তি ফরম পূরণ করতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

১ম মেধাতালিকায় সুযোগ প্রাপ্তদের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যঃ

  • ১ম মেধা তালিকায় স্থান প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অনলাইনে চুড়ান্ত ভর্তি ফরম পূরণ করার তারিখঃ ১২/১১/২০১৬ থেকে ১৭/১১/২০১৬।
  • ১ম মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অনলাইনে চূড়ান্ত ভর্তির ফরম প্রিন্ট করে ভর্তি ফি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ সংশ্লিষ্ট কলেজে জমা দেয়ার সময়সীমাঃ ১২/১১/২০১৬ থেকে ১৯/১১/২০১৬।
  • সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক ১ম মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের চূড়ান্ত ভর্তি নিশ্চয়নের সময়সীমাঃ ২০/১১/২০১৬ থেকে ২৪/১১/২০১৬।
  • ক্লাশ শুরুর তারিখঃ ২০ নভেম্বর ২০১৬।

ভর্তি হতে যে সকল কাগজপত্র লাগবেঃ

  • অনলাইন থেকে মূল আবেদন ফর্মের – ২ সেট ( অবশ্যই A4 অফসেট সাদা কাগজে কালার প্রিন্ট করতে হবে)।
  • প্রাথমিক আবেদনের প্রবেশপত্র -২সেট।
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি ৪টি এবং স্ট্যাম্প সাইজ ৪টি পেছনে নাম লিখে দিতে হবে (কলেজভেদে কম বেশি হতে পারে)।
  • স্নাতক (পাস) এর সনদপত্র/প্রশংসা পত্রের সত্যায়িত ফটোকপি – ২ সেট।
  • স্নাতক (পাস) পরীক্ষার নম্বরপত্র।
  • স্নাতক (পাস) পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত ফটোকপি – ২ সেট।
  • টাকা জমার রশিদ।
  • চারিত্রিক সনদপত্র (সাধারণত লাগেনা, কোন কোন কলেজে লাগতে পারে) – ২ টি।

উল্লেখ্য, সকল কাগজপত্র ২ কপি করে ২ সেট বানাতে হবে যার এক কপি বিভাগীয় সেমিনারে এবং এক কপি অফিসে জমা দিতে হবে।

১ম মেধাতালিকায় প্রত্যাশিত বিষয় পাননি?

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়ার ১ম মেধাতালিকায় সুযোগ প্রাপ্ত ভর্তি ইচ্ছুকরা তাদের সুযোগপ্রাপ্ত বিষয়টি পছন্দ না হলে চাইলে বিষয় পরিবর্তনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এই প্রক্রিয়াকে বিষয় পরিবর্তন বা মাইগ্রেশন বলা হয়ে থাকে। মাইগ্রেশন সংক্রান্ত বিস্তারিততথ্য পাবেন এই লিঙ্কে

১ম মেধাতালিকায় সুযোগ পাননি?

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ফলাফল কয়েকটি ধাপে প্রকাশ করে। যেমনঃ

সুতরাং পরবর্তীতে ২য় মেধাতালিকা প্রকাশ হবে এবং তখন অনেকেই সুযোগ পাবেন। আর ২য় মেধাতালিকায় সুযোগ না পেলেও রিলিজ স্লিপের মাধ্যমে কোন না কোন কলেজে ভর্তি হতে পারবেন।

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 541 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করছেন ।


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*