web tracker

সহজে ২০১৭ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল জানবেন যেভাবে

২০১৭ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ২৩শে জুলাই দুপুর ১:৩০ মিনিটে প্রকাশ করা হয়েছে। এবার পাসের হার ৬৮.৯১ শতাংশ আর এছর মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭ হাজার ৭২৬ জন

রেওয়াজ অনুযায়ী আজ সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফলের কপি ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট বোর্ড চেয়ারম্যানরা। এরপর দুপুর ১টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করেন।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে সহজে সকল বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭ জানা যাবে….

অনলাইনে ফলাফল পাওয়ার পদ্ধতিঃ পরীক্ষার্থীগণ শিক্ষা বোর্ডসমূহের ওয়েবসাইট www.educationboardresults.gov.bdeboardresults.com ছাড়াও সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফল সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া আপনাদের সুবিধার্থে লেখাপড়া বিডি’র এই পোস্টের নিচে প্রদত্ত বক্স থেকেও সরাসরি ফলাফল দেখা যাবে।

অনলাইনে এইচএসসি / সমমান পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭ জানা যাবে এখানে

ফলাফল দেখুন

রেজিস্ট্রেশন নম্বর ছাড়াই ফলাফল দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

ফলাফল প্রকাশের পর পর সার্ভার এর উপর অতিরিক্ত চাপ পরার কারণে উপরের বক্স থেকে ফলাফল দেখতে সমস্যা হতে পারে। সহজে ফলাফল পেতে নিচের লিঙ্কগুলো থেকে আপনার কাঙ্খিত বোর্ডের ফলাফল দেখুন।

যশোর বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

কুমিল্লা বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

ঢাকা বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

চট্টগ্রাম বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

সিলেট বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

দিনাজপুর বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

বরিশাল বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

রাজশাহী বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

কারিগরি বোর্ড এর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

মাদরাসা বোর্ড এর আলিম পরীক্ষার ফলাফল ২০১৭

 সকল বোর্ড এর ফলাফল দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

মোবাইলে ফলাফল জানার উপায়ঃ যে কোনো মোবাইল থেকে এসএমএসের মাধ্যমে ফল পেতে মেসেজ অপশনে গিয়ে HSC অথবা Alim লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে পাসের সাল লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

উদাহরণ:

সাধারণ বোর্ডের ক্ষেত্রে HSC DHA 123456 2017

মাদ্রাসা বোর্ডের জন্য Alim MAD 123456 2017

এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের জন্য HSC TEC 123456 2017

লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

ফলাফল প্রকাশের ধারাবাহিকতাঃ বিগত কয়েক বছর ধরে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ০২ এপ্রিল শুরু হয়। তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হয় ১৫ই মে। ব্যবহারিক পরীক্ষা ১৬ই মে থেকে শুরু হয়ে শেষ হয় ২৫শে মে। ২৪ জুলাই এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিন পূর্ণ হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় ২৩শে জুলাই এবারের ফলাফল প্রকাশ করা হলো।

এবারের পরীক্ষার্থী সংখ্যাঃ ১০ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেয় ১১ লাখ ৮৩ হাজার ৬৮৬ জন শিক্ষার্থী। মোট পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৬ লাখ ৩৫ হাজার ৬৯৭ জন ছাত্র এবং ৫ লাখ ৪৭ হাজার ৯৮৯ জন ছাত্রী।

পরিসংখ্যানঃ আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরিসহ মোট ১০ শিক্ষা বোর্ডে এ বছর এইচএসসিতে গড় পাসের হার ৬৮ দশমিক ৯১ শতাংশ। গত বছর এই ১০ শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ছিলো ৭৪ দশমিক ৭০ শতাংশ। আর এছর মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৭ হাজার ৭২৬ জন। গত বছর জিপিএ-৫ ছিল ৫৮ হাজার ২৭৬জন।

অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় এ বছর মোট গড় পাসের হার এবং জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে। গত বছরের তুলনায় এবছর পাসের হার কমেছে ৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ বিন্দু।

এর মধ্যে এ বছর আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ৬৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩ হাজার ২৪২ জন।

কুমিল্লা বোর্ডে পাসের হার ৪৯ দশমিক ৫২ শতাংশ। গত বছর ছিল ৬৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

ঢাকা বোর্ডে এ বছর এইচএসসিতে পাসের হার ৬৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। গত বছর এ পাসের হার ছিল ৭৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

রাজশাহী বোর্ডে এইচএসসিতে পাসের হার ৭১ দশমিক ৩০ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে পাঁচ হাজার ২৯৪ জন। এই বোর্ডে গত বছর পাসের হার ছিল ৭৫ দশমিক ৪০ শতাংশ। জিপিএ-৫ ছিল ছয় হাজার ৭৩ জন।

দিনাজপুর বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৬৫ দশমিক ৪৪ শতাংশ। জিপিএ-৫ দুই হাজার ৯৮৭ জন। গত বছর পাসের হার ছিল ৭০ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

চট্টগ্রাম বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৬১ দশমিক ০৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ এক হাজার ৩৯১জন। গত বছর পাসের হার ছিল ৬৪ দশমিক ৬০ শতাংশ। জিপিএ-৫ দুই হাজার ২৫৩জন।

যশোর বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৭০ দশমিক ০২ শতাংশ। জিপিএ-৫ ১ হাজার ৮১৫জন। গত বছর ছিল ৮৩ দশমিক ৪২ শতাংশ।

বরিশাল বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৭০ দশমিক ২৮ শতাংশ। জিপিএ-৫ ৮শ ১৫ জন। গত বছর পাসের হার ৭০ দশমিক ১৩ শতাংশ। জিপিএ-৫ ৭শ ৮৭ জন।

সিলেট বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৭২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭শ। গত বছর পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৫৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ ৩শ ৩০ জন।

মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৭৭ দশমিক ০২, জিপিএ-৫ এক হাজার ৮১৫ জন। গত বছর ছিল ৮৮ দশমিক ১৯ শতাংশ।

কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৮১ দশমিক ৩৩ শতাংশ, জিপিএ-৫ দুই হাজার ৬৬৯জন। গত বছর ছিল ৮৪ দশমিক ৫৭ শতাংশ। জিপিএ-৫ ছয় হাজার ৫৮৬জন।

এছাড়াও ঢাকাবোর্ডের অধীনে ডিপ্লোমা-ইন-বিজনেস স্টাডিজ শিক্ষার্থীদের পাসের হার ৭১ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণঃ পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ফলাফল প্রকাশের পর দিন থেকে এক সপ্তাহ আবেদন গ্রহণ করা হবে।

এজন্য শুধু টেলিটক মোবাইল থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষা বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে স্পেস দিয়ে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

প্রতিটি বিষয় বা পত্রের জন্য ১৫০ টাকা ফি প্রযোজ্য।

ফিরতি এসএমএসে আবেদন ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন নম্বর দেওয়া হবে। আবেদনে সম্মত থাকলে মেসেজ অপশনে গিয়ে RSC লিখে স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে মোবাইল নম্বর দিয়ে পূণরায় ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (যেমন: বাংলা ও ইংরেজি) রয়েছে, সেসব বিষয়ে একটি বিষয় কোডের বিপরীতে আবেদন দুটি পত্রের আবেদন হিসেবে বিবেচিত হবে এবং আবেদন ফি ৩০০ টাকা ফি নেওয়া হবে।

একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের আবেদন করা যাবে, এক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে কমা দিয়ে লিখতে হবে। পুনঃনিরীক্ষণ সংক্রান্ত বিস্তারিত নির্দেশনা পাবেন এই লিঙ্কে

পোষ্টটি লিখেছেন: আল মামুন মুন্না

আল মামুন মুন্না এই ব্লগে 544 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আল মামুন মুন্না, বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ব্লগ সাইট "লেখাপড়া বিডি"র একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন যশোর সরকারী এম. এম. কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিষয় নিয়ে বি.বি.এ অনার্স সম্পন্ন করছেন ।


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

2 comments

  1. ধণ্যবাদ ভাই।ভাই আমি আপনাকে আমর ব্লগের লেখক হিসেবে এড করতে চাই ।এই ফ্রমটা http://www.bdtipstech.com/p/sign-up.html পুরন করে দিলেই আমি আপনাকে ইনভাইটেশন পাঠাবো।please vai.

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*