web site hit counter

যবিপ্রবি’র ২য় সমাবর্তনের বিস্তারিত তথ্য

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) দ্বিতীয় সমাবর্তনের রেজিস্ট্রেশন চলছে। পূর্বের ঘোষণা অনুযায়ী ২৮ অক্টোবর রেজিস্ট্রেশনের শেষ দিন থাকলেও তা বাড়িয়ে আগামী ৩ নভেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। আর চলতি বছরের ২৬ নভেম্বর যবিপ্রবির এই ২য় সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হবে।Jessore_University_of_Science_&_Technology_logo

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন ও দ্বিতীয় সমাবর্তন উপ-কমিটির আহবায়ক ড. বিপ্লব কুমার বিশ্বাস স্বাক্ষরিত এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তিনি সমাবর্তনের রেজিস্ট্রেশন, পরিচয়পত্র তৈরি এবং বিতরণ উপ-কমিরি আহবায়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

তিনি জানান, দ্বিতীয় সমাবর্তন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগসমূহের (ফলাফল প্রকাশের সাপেক্ষে) গ্রাজুয়েটগণ স্ব স্ব বিভাগে রক্ষিত ফরম অথবা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.just.edu.bd) থেকে ফরম ডাউনলোড করে আবেদন করতে পারবে।

আবেদন করার নিয়ম: আবেদনের সময় দুই প্রস্থ আবেদনপত্র পূরণপূর্বক ২ কপি পাসফোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি, এসএসসি পরীক্ষার সনদপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি, সাময়িক সনদপত্র (প্রভিশনাল সার্টিফিকেট) উত্তোলন করে থাকলে তার মূল কপি জমা দিতে হবে। সেইসাথে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ৩ হাজার টাকা ব্যাংক ড্রাফট/পে–অর্ডারের স্লিপ অবশ্যই সংযুক্ত করতে হবে।

এছাড়া আবেদনকারীর সাথে অতিথি থাকলে আবেদনকারীকে অতিথি রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণপূর্বক অতিথি রেজিস্ট্রেশনের নির্ধারিত ফি ব্যাংক ড্রাফট/পে-অর্ডারের মাধ্যমে প্রদান করে তা আবেদন পত্রের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। সমাবর্তনে যোগদানে ইচ্ছুক গ্রাজুয়েটরা চলতি মাসের ২৮ তারিখ পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করতে পারবেন। বিলম্বে কোনো আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে না বলে জানিয়েছেন এর দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক।

তবে যে সকল গ্রাজুয়েট আগে দ্বিতীয় সমাবর্তনে অংশগ্রহণের জন্যে রেজিস্ট্রেশন করেছেন তাদের পুনরায় রেজিস্ট্রেশনের করার প্রয়োজন নেই।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে সে সময় দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থিতিশীল থাকায় ও রাষ্ট্রপতির অসুস্থতার কারণে তা পিছিয়ে যায়।

এবারের সমাবর্তনে প্রধান অতিথি থাকবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।
সমাবর্তন বক্তা থাকবেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এ. কে. আজাদ চৌধুরী।

২০০৯-১০ ও ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (ইঞ্জিনিয়ারিং/সম্মান) শিক্ষার্থীদের এ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হবে।

যবিপ্রবির ভিসি প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তার সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করবেন।

এর আগে, ২০১৩ সালে যবিপ্রবি গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। ওই সমাবর্তনে ২০০৯ সালে যবিপ্রবিতে ভর্তি হওয়া প্রথম ব্যাচের ১২০ জন শিক্ষার্থী তাদের স্নাতক (সম্মান) পাসের সনদপত্র গ্রহণ করেন।

যবিপ্রবি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, কোনো ধরনের সেশনজট ছাড়াই মাত্র ৩ বছর ৮ মাসে প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা স্নাতক পর্যায় অতিক্রম করেন।

পোষ্টটি লিখেছেন: লেখাপড়া বিডি ডেস্ক

লেখাপড়া বিডি ডেস্ক এই ব্লগে 752 টি পোষ্ট লিখেছেন .


পোস্টটি শেয়ার করে অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। ফেইসবুকে শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের গ্রুপে যোগ দিন অথবা পেইজ এ লাইক দিয়ে রাখুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.